তিন বাবা-মায়ের সন্তান!

প্রকাশ: ১০ জুন ২০১৪      

সমকাল ডেস্ক

'থ্রি প্যারেন্ট ইন ভিট্রো ফার্টিলাইজেশন (আইভিএফ)' নামের এ পদ্ধতি ব্রিটিশ সরকারের অনুমোদন পেলে আগামী দুই বছরের মধ্যে বিশ্বের প্রথম শিশুটির জন্ম হতে পারে, যার বাবা-মা হবেন তিনজন। এ প্রক্রিয়ায় শিশুর দুরারোগ্য ব্যাধি নিয়ে জন্মগ্রহণ ঠেকানো যাবে বলে বিজ্ঞানীদের বিশ্বাস। যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রে গত কয়েক বছর ধরে 'থ্রি প্যারেন্ট আইভিএফ' পদ্ধতি নিয়ে গবেষণা চললেও আইনি বিধিনিষেধ
থাকায় কখনোই জিনগত পরিবর্তন ঘটিয়ে কোনো মানবশিশুর জন্ম দেওয়া হয়নি। ব্রিটিশ সরকার গত বছর প্রথমবারের মতো এ পদ্ধতিকে আইনি ছাড়পত্র দেওয়ার উদ্যোগ নেয়। তার অংশ হিসেবেই এ বিশেষজ্ঞ প্যানেল গঠন করে নীতিমালা তৈরির কাজ শুরু হয়। এ পদ্ধতি যথেষ্ট নিরাপদ কি-না তা খতিয়ে দেখতে যুক্তরাষ্ট্রেও একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি কাজ করছে।
ব্রিটেনের নিউক্যাসল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা দু'ভাবে 'থ্রি প্যারেন্ট আইভিএফ' করার বিষয়ে কাজ করছেন। ব্রিটিশ বিশেষজ্ঞ প্যানেলের সদস্য অধ্যাপক পিটার ব্রোডা বলেন, এ পর্যন্ত যেসব তথ্যপ্রমাণ তারা দেখেছেন তাতে 'থ্রি প্যারেন্ট আইভিএফ' পদ্ধতির কোনো ঝুঁকি তারা দেখতে পাননি। বরং জিনগত সমস্যায় ভুগছেন এমন দম্পতির জন্য এটি একটি কার্যকর চিকিৎসা পদ্ধতি হতে পারে। নিজেদের জিনগত ত্রুটির কারণে যেসব দম্পতি সন্তান নিতে ভয় পাচ্ছেন, এ চিকিৎসা পদ্ধতি তাদের জন্য খুলে দেবে নতুন সম্ভাবনার দুয়ার। সূত্র :রয়টার্স।