সকল সুখের মূল

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০১৪      

সমকাল ডেস্ক

শরীর ও মন দুটো ভালো রাখতে চান? রাতভর টানা ঘুমাতে চান? কিছুই করতে হবে না। ঝাঁপিয়ে পড়ূন পুকুরে কিংবা সুইমিংপুলে। বাড়ির পাশে নদী থাকলে তো কথাই নেই। মনের সুখে সাঁতরাতে থাকুন যতক্ষণ ইচ্ছে। দেখবেন শরীরের ম্যাড়ম্যাড়ে ভাব কিংবা মানসিক বিষণ্নতা সব কেটে গেছে। ঝরঝরে শরীর আর ফুরফুরে মন নিয়ে ঘুরে বেড়ান। শরীর-মনের এই স্বতঃস্ফূর্ত ভাবটা আপনি পেয়ে গেছেন সাঁতার
থেকে। নতুন এক গবেষণা আপনাকে দিচ্ছে এ সুসংবাদ।
গবেষণাটি চালিয়েছিলেন ব্রিটিশ গ্যাস সুইমব্রিটেনের সদস্যরা। প্রতিবছর সেপ্টেম্বরে ব্রিটেনে সাঁতার কাটাকে উৎসবের মতো করে দলে দলে উদযাপন করা হয়। এরাই বলেছেন কথাটা। তাদের অভিজ্ঞতা হলো এ রকম :আপনি যদি নিয়মিত সাঁতার কাটার অভ্যাস করেন, তাহলে দেখবেন, আপনার মন-মেজাজ ফুরফুরে হয়ে গেছে। আর আপনি আগের চেয়ে অনেক সুস্থও বোধ করছেন।
চার সপ্তাহের এক জরিপ গবেষণায় দেখা গেছে, অংশগ্রহণকারীদের ৩৫ ভাগই এমন মন্তব্য করেছেন।
জরিপে আরও দেখা গেছে, সামান্য খেলাধুলা আপনার প্রতিদিনকার জীবনে টনিক হিসেবে কাজ করতে পারে। এটা আপনার ঘুমের পরিমাণ বাড়াবে, প্রাণশক্তির উন্নতি ঘটাবে এবং আপনার ফিটনেস ঠিক রাখবে। ফিমেলফার্স্ট ডট কোম্পানি ডট ইউকের প্রতিবেদনে এমন প্রয়োজনীয় তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।
যারা সাঁতারে অভ্যস্ত, প্রায় প্রতিদিন সাঁতার কাটার সুযোগ পান, তাদের জন্যও একই কথা। প্রতিদিন সাঁতারের পরিমাণ বাড়িয়ে তারা এখন যে উপকারটুকু পাচ্ছেন, সেটাকে দ্বিগুণ করে তুলতে পারেন। আর সাঁতার কাটার ইতিবাচক ফলটা পেতে আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে মাত্র এক থেকে দেড় সপ্তাহ।
অলিম্পিক সাঁতারু বেকি অ্যাডলিংটন বলেন, 'সাঁতার আমার রক্তের মধ্যে। সাঁতার কেটে আমি অনেক আনন্দ পাই। এ গবেষণার ফল আমার মনে আরও অনেক বিশ্বাস তৈরি করতে সহায়তা করেছে। আর এটা একটা ক্রীড়া হিসেবেও অনেক চমৎকার। সূত্র :দি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।