এবারের মেলার চিত্র অন্যরকম। চারপাশে কড়া পুলিশি নিরাপত্তা। মেলার উনিশতম দিনে গতকাল শুক্রবার সবার নজর কেড়েছে দুর্বৃত্তদের হাতে নিহত জাগৃতি প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী ফয়সাল আরেফিন দীপনের স্মরণে লাগানো কালো ব্যানার ও বিভিন্ন ফেস্টুন। মেলার প্রবেশপথসহ বিভিন্ন স্থানে দীপনের হাসিমাখা ছবি সংবলিত ব্যানার ও ফেস্টুন টানিয়েছেন তার কলেজের বন্ধুরা; যাতে লেখা, 'যে দীপ জ্বেলেছিল দীপন'। মেলার প্রথম দিন থেকেই অনেকের ক্ষোভ রয়েছে, নিহত ব্লগার-লেখক অভিজিৎ রায় ও প্রকাশক ফয়সাল আরেফিন দীপনের স্মরণে মেলার আয়োজক বাংলা একাডেমির উদ্যোগে কোনো স্মৃতি-স্মারক না রাখায়। গতকাল শিশু প্রহর


থেকে শুরু করে রাত অবধি মেলার প্রাঙ্গণজুড়ে শিশুদের কলতান আর বইপ্রেমীদের আনাগোনার মধ্যে দীপনের হাস্যোজ্জ্বল ছবি যেন প্রত্যেককে বলছিল, 'আছি, আমিও আছি তোমাদের সঙ্গে।'
দীপনের স্ত্রী রাজিয়া রহমান জলি সমকালকে বলেন, "১৯৯১ ব্যাচে ঢাকা কলেজে দীপনের সহপাঠীরা সম্প্রতি তার নামে 'দীপন স্মৃতি সংসদ' করেছেন। তারাই মেলায় ব্যানার আর ফেস্টুন টানিয়েছেন।" সংগঠনটি মেলাকেন্দ্রিক কোনো কর্মসূচি নেবে কি-না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'থাকবে। তবে এখনও নির্দিষ্ট হয়নি।'
গতকাল সারাটা দিনই বইমেলা প্রাঙ্গণ মুখর ছিল সব বয়সী পাঠক আর ক্রেতার ভিড়ে। বসন্ত এসে গেছে, তাই ধুলাও উড়েছে বেশ। তবে বইপ্রেমীদের উচ্ছ্বাসের ঘাটতি হয়নি তাতে। বন্ধু-বান্ধব আর সঙ্গীদের সঙ্গে নিয়ে আড্ডা দিয়ে আর বই কিনে দারুণ একটি দিন পার করেছেন তারা। কেনাকাটা ভালো হওয়ায় প্রকাশকদের মুখের হাসিও চওড়া হয়েছে আরও।
শুক্র, শনি আর রোববার একুশে ফেব্রুয়ারি,- টানা তিন দিনের ছুটির প্রথম দিন ছিল গতকাল। তীব্র রোদ আর গরম উপেক্ষা করে সকাল থেকেই মেলাপ্রাঙ্গণে ভিড় জমাতে শুরু করেন বইপ্রেমীরা। ফেসবুকে বন্ধুর ওয়ালে প্রাবন্ধিক সনৎকুমার সাহার ষাট-সত্তরের দশকের বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় ছড়ানো-ছিটানো দুষ্প্রাপ্য বিভিন্ন প্রবন্ধের সংকলন 'পুরানো জানিয়া' প্রকাশের খবর জেনে নারায়ণগঞ্জ থেকে এসেছেন এক লিটল ম্যাগ কর্মী। ফরাসি লেখক স্যাঁৎ-একজ্যুপেরির বিখ্যাত ধ্রুপদী কিশোর উপন্যাস 'ছোট্ট রাজপুত্র' এবার বাংলায়ও প্রকাশ হয়েছে প্রকৃতি-প্রকাশন থেকে আনন্দময়ী মজুমদারের অনুবাদে। স্টলটি খুঁজছেন সূত্রাপুরের এক মা তার ছেলেকে নিয়ে। এখন মেলায় আসতে শুরু করেছেন এমন সব পড়ূয়া-ক্রেতা, যারা ঠিক করে ফেলেছেন কী কিনবেন।
অ্যাডর্ন পাবলিকেশনের সৈয়দ জাকির হোসাইন বললেন, 'দারুণ একটা দিন গেল আজ। সকাল থেকে পাঠকেরা এসেছেন, বই দেখেছেন। বিক্রিবাট্টাও ভালো হয়েছে।'
মোড়ক উন্মোচন : গতকাল শুক্রবার মেলাজুড়ে ছিল নানা আয়োজন। বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের পঞ্চম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন হয় মেলার নজরুল মঞ্চে। সেইসঙ্গে মোড়ক উন্মোচন করা হয়েছে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী সংকলন 'নগর নাব্য' বইয়ের। আয়োজনে আরও ছিল কেক কাটা, ফুলেল শুভেচ্ছা বিনিময়, র‌্যাফেল ড্র এবং সম্মাননা প্রদান। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা। সঞ্চালনা করেন বিডিনিউজ ব্লগের সম্পাদক আইরিন সুলতানা। সম্মাননা প্রদান করা হয় ব্লগার জয়নাল আবেদীন ও ফারদিন ফেরদৌসকে।
চলচ্চিত্র প্রকাশনা অধিদপ্তর প্রকাশিত আ ন ম আমিনুর রহমানের 'বাংলাদেশের বন্য প্রাণী' বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তিনি বলেন, 'টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে হলে আমাদের জীববৈচিত্র্য রক্ষা করেই করতে হবে। বইটিতে জীববৈচিত্র্য রক্ষা করার নানা উপকরণ ব্যাখ্যা করা হয়েছে। পরিবেশ উন্নয়নের লক্ষ্যে কাজ করতে এ বইটি সহায়ক ভূমিকা রাখবে।'
বুয়েটের উপাচার্য অধ্যাপক ড. খালেদা একরাম উন্মোচন করেন দোয়েল প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত বুয়েটের কর্মকর্তা আলমগীর খোরশেদের 'চন্দ্রমুখী' বইটির মোড়ক।
নতুন বই : একাডেমির তথ্যানুযায়ী, গতকাল মেলার ১৯তম দিনে নতুন ২৩৬টি বই প্রকাশিত হয়েছে। এর মধ্যে গল্প ৩৪, উপন্যাস ৪০, প্রবন্ধ ১০, কবিতা ৫৪, গবেষণা ৩, ছড়া ৫, শিশুতোষ ৯, জীবনী ৬, রচনাবলি ১, মুক্তিযুদ্ধ ৯, বিজ্ঞান ৭, ভ্রমণ ৪, ইতিহাস ৬, রাজনীতি ১, চিকিৎসা/স্বাস্থ্য ১, রম্য/ধাঁধা ৫, ধর্মীয় ৪, অনুবাদ ৩, সায়েন্স ফিকশন ৩ ও অন্যান্য ৩১।
মেলা উপলক্ষে প্রকাশিত উল্লেখযোগ্য বইয়ের মধ্যে রয়েছে আল মাহমুদের 'সাহসের সমাচার' (অনন্যা), সৈয়দ শামসুল হকের 'চীনে আমরা পাঁচজন' (কথাপ্রকাশ), আবুল মোমেনের 'শূন্যতা সুন্দর', আবুল ফজলের 'শেখ মুজিব তাঁকে যেমন দেখেছি', আনিসুল হকের 'জেনারেল ও নারীরা' (প্রথমা), বাদল সৈয়দের 'জলের উৎস' (বাতিঘর), মোহিত কামালের 'দুখু' (অনিন্দ্য প্রকাশ), আতাউর রহমানের 'ভাওয়ালের রাজকুমার ও সন্ন্যাসী রাজা' (ভাওয়াল প্রকাশনী), আবদুর রহমানের 'রক্তের পিচ্ছিল পথ ৭১' (কলি প্রকাশনী), গওহর জামিলের 'শেকড়ের গল্প' (চিত্রা প্রকাশনী), ফয়জুল ইসলামের 'খোয়াজ খিজিরের সিন্দুক' (সমগ্র), আমিনুর রহমান সুলতানের 'বাড়ির নাম ৩২ নম্বর' (পুঁথিনিয়ল) ও সিজন নাহিয়ানের 'একাকিত্বের রঙ' ইত্যাদি।
মেলামঞ্চের আয়োজন : গতকাল সকালে মেলার মূল মঞ্চে শিশু-কিশোর সঙ্গীত প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। বিকেলে মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় 'রাধারমণ দত্ত : মৃত্যুশতবার্ষিকী' শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন শুভেন্দু ইমাম। আলোচনায় অংশ নেন মাহফুজুর রহমান, বিশ্বজিৎ রায় এবং নৃপেন্দ্রলাল দাশ। সভাপতিত্ব করেন কবি মোহাম্মদ সাদিক। এ ছাড়া একাডেমি প্রাঙ্গণে চলছে অমর একুশে ও হীরকজয়ন্তী উপলক্ষে শিল্পী কালিদাস কর্মকারের মাসব্যাপী বিশেষ একক চিত্রপ্রদর্শনী 'পাললিক বর্ণমালা'।



মন্তব্য করুন