বরিশালে একটি মসজিদে জোর করে জুমার নামাজ পড়াতে গিয়ে সরকারবিরোধী বক্তব্য দেওয়ায় জঙ্গি সন্দেহে এক ইমামকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার হিজলা উপজেলার বড়জালিয়া ইউনিয়নের বাউশিয়া জামে মসজিদে এ ঘটনা ঘটে। ওই ইমামের নাম হাফেজ মো. বেল্লাল হোসেন তালুকদার। তিনি বড়জালিয়া গ্রামের কালু তালুকদারের ছেলে।
বড়জালিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান পণ্ডিত শাহাবুদ্দিন জানান, বাউশিয়া জামে মসজিদের নিয়মিত
ইমাম আবদুর রব অসুস্থ থাকায় গতকাল জুমার নামাজ পড়ানোর কথা ছিল মাওলানা কবির হোসেনের। কিন্তু হঠাৎ করে একই গ্রামের হাফেজ বেল্লাল হোসেন ইমামের স্থানে দাঁড়িয়ে বলেন, তিনি নামাজ পড়াতে চান। ওই মসজিদে নামাজ পড়তে যাওয়া স্থানীয় ইউপি সদস্য ঝন্টু হাওলাদারের বক্তব্যের বরাত দিয়ে শাহাবুদ্দিন বলেন, হাফেজ বেল্লাল হোসেন ইমামের জায়গায় দাঁড়িয়ে মুসলি্লদের উদ্দেশে বলতে থাকেন, বর্তমান সরকার নাস্তিক। ইসলাম আজ বিপন্ন। সরকারের নির্ধারণ করা খুতবাও সঠিক নয়। এতে মুসলি্লরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। খবর পেয়ে পুলিশ বেল্লালকে আটক করে।
বেল্লাল হোসেন স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, তিনি বরিশালের মাহমুদিয়া মাদ্রাসায় পড়াশোনা শেষে দুই বছর ধরে চাঁদপুর সদর উপজেলার কাদেরিয়া ইসলামিয়া নূরানী মাদ্রাসা ও পার্শ্ববর্তী দীঘিরপার জামে মসজিদে ইমামতি করছেন। কিছু দিন আগে ছুটিতে তিনি বাড়ি এসেছেন। ইউপি চেয়ারম্যান শাহাবুদ্দিন বলেন, বেল্লাল অত্যন্ত উগ্র স্বভাবের। তার সঙ্গে জামায়াতের সংশ্লিষ্টতা এবং নাশকতার অভিযোগে ২০১৩ সালে ঢাকায় গ্রেফতার হওয়ার অভিযোগ আছে।
এ প্রসঙ্গে হিজলা থানার ওসি মো. মাসুদুজ্জামান বলেন, বেল্লালকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। সরকারবিরোধী বক্তব্য দেওয়ার জন্য মামলার প্রস্তুতি চলছে।



মন্তব্য করুন