আদালতে নজরুলের স্বীকারোক্তি

অপহরণ নয় আত্মগোপন করেছিলাম

প্রকাশ: ০৭ এপ্রিল ২০১৮      

খুলনা ব্যুরো

অপহরণ নয় আত্মগোপন করেছিলাম

উদ্ধার বিএনপি নেতা নজরুল

নিখোঁজের ১৮ দিন পর উদ্ধার হওয়া খুলনা জেলা বিএনপির সহ-ধর্মবিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মোড়ল গতকাল শুক্রবার দুপুরে খুলনার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রওশন আরা রহমানের আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, 'প্রায় ১৫ লাখ টাকা দেনা থাকায় আমি স্বেচ্ছায় কক্সবাজারের রামুতে গিয়ে আত্মগোপন করি। কেউ আমাকে অপহরণ করেনি।'

আদালতে জবানবন্দি দেওয়ার পর নজরুল ইসলামকে নিয়ে খুলনার নিজ কার্যালয়ে বিকেলে প্রেস ব্রিফিংয়ের আয়োজন করেন পুলিশ সুপার নিজামুল হক মোল্লা। সেখানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এ কথা জানান বিএনপি নেতা নজরুল।

পুলিশ সুপার জানান, গত ১৭ মার্চ সন্ধ্যায় নজরুল ইসলাম অপহরণ হয় বলে তার স্ত্রী তানজিলা বেগম ডুমুরিয়া থানায় জিডি করেন। এরপর খুলনা জেলা বিএনপি সংবাদ সম্মেলন করে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তাকে অপহরণের পর 'গুম' করেছে বলে অভিযোগ করে। পুলিশ নজরুলের মোবাইল নম্বর ট্র্যাকিং করে তার অবস্থান সম্পর্কে নিশ্চিত হয়। গত ৪ এপ্রিল রাতে কক্সবাজারের রামু উপজেলার সাইফুল ইসলামের বাড়ি থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

তিনি আরও জানান, জিজ্ঞাসাবাদে বিএনপি নেতা নজরুল জানিয়েছেন বিভিন্ন ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, সমিতি ও ব্যাংকের কাছে তার ১৫-২০ লাখ টাকা দেনা রয়েছে। এ কারণেই তিনি রামুতে গিয়ে সাইফুলের বাড়িতে আশ্রয় নেন। সাইফুল এর আগে ইয়াবার একটি মামলায় খুলনা জেলা কারাগারে ছিলেন। তখন নাশকতার মামলায় কারাগারে থাকা অবস্থায় নজরুলের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। আত্মগোপনে গিয়ে নিজের মোবাইল নম্বর বদলে ফেলেন তিনি।

বিএনপি নেতা নজরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, তিনি স্বেচ্ছায় বাসে করে কক্সবাজার যান, তাকে কেউ অপহরণ করেনি। আত্মগোপনে গিয়েই তিনি তার দাড়ি কেটে ফেলেন, যাতে কেউ তাকে দেখে চিনতে না পারে। এ সময় পরিবারের কারও সঙ্গে যোগাযোগ করেননি তিনি।