যুক্তরাষ্ট্র-জাতিসংঘের বিবৃতি অযাচিত অনভিপ্রেত

তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশ: ০৮ আগস্ট ২০১৮

সমকাল প্রতিবেদক

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার অভিযোগ নিয়ে জাতিসংঘ ও যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসের বিবৃতি অনভিপ্রেত ও অযাচিত। একই সঙ্গে এসব বিবৃতি প্রত্যাহার করার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

গতকাল মঙ্গলবার সচিবালয়ের নিজ দপ্তরে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, এই বিবৃতির মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে শিষ্টাচারবহির্ভূত নাক গলানোর অপপ্রয়াস করেছে। আমরা এটার নিন্দা করি।

এই বিবৃতি প্রত্যাখ্যান করছি এবং প্রত্যাহার করারও অনুরোধ করছি।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, জাতিসংঘের বাংলাদেশ প্রধানের বিবৃতি ও যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসের বিবৃতি নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের আন্দোলন সম্পর্কে সঠিক বিবৃতি নয়। আশা করি, তারা এই ধরনের বিবৃতি দেবেন না। বাংলাদেশের প্রকৃত ঘটনার ভিন্ন চিত্রায়নও করবেন না। সরকারের অবস্থানের বিষয়ে লিখিতভাবে দুই দপ্তরে পাঠানো হবে।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীরা গণপরিবহনের অনিয়মগুলো ধরার জন্য বিভিন্ন রকমের পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালায়। প্রশাসন তাদের পাহারা দিয়ে রাখে। প্রধানমন্ত্রী কোমলমতি শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা ও নয় দফা দাবি বিশ্নেষণ করে তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ নেন। এ রকম পরিস্থিতিতেও বাইরে থেকে উস্কানি ও কোমলমতি শিশুদের নিরাপদ সড়কের ন্যায্য আন্দোলনকে কাজে লাগিয়ে তা চক্রান্তের দিকে নিয়ে যাওয়ার একটা অপচেষ্টা হয়েছে। এক্ষেত্রে ন্যক্কারজনক গুজব রটানো ও মিথ্যাচার করা হয়েছে। কতিপয় চিহ্নিত মহল আওয়ামী লীগের ধানমি র কার্যালয়ে আক্রমণ করতেও উদ্যত হলে বাইরের উস্কানিদাতাদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। সেই সংঘর্ষের মধ্যেও সরকার শিশুদের রক্ষা করার চেষ্টা করেছে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, শিশু শিক্ষার্থীদের ওপর কোনো দমন-পীড়ন ও আক্রমণ হয়নি। ঢাকার দু-তিন জায়গায় বিক্ষিপ্ত-বিচ্ছিন্ন সংঘর্ষ হয়েছে। পুলিশ সেগুলো নিয়ন্ত্রণে রাখার চেষ্টা করেছে। আমরা তাই মনে করি, এ রকম পরিস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস যে বক্তব্য দিয়েছে, তা অত্যন্ত ?দুঃখজনক। শিশুদের আন্দোলনকে বর্বরোচিত হামলার মধ্য দিয়ে দমন করার কোনো ঘটনাই ঘটেনি। গণমাধ্যমেও এমন কোনো রিপোর্ট নেই।

তিনি আরও বলেন, নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করার জন্য সরকারের সব প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে। আন্দোলনের মধ্যে উস্কানিদাতাদের চিহ্নিত করা হয়েছে। যারা কোমলমতি শিক্ষার্থীদের কাঁধে বন্দুক রেখে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের চেষ্টা করছিল এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব রটনাকারী ও মিথ্যাচারকারীদের চিহ্নিত করার চেষ্টা চলছে। তাদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর ব্যবস্থা নেবে।

বিএনপি-জামায়াত দেশের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে একই দিন রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউর শহীদ কর্নেল তাহের মিলনায়তনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে জাসদ আয়োজিত আলোচনা সভায় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, মুক্তিযুদ্ধে পরাজিত শক্তি তাদের পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতেই বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল। আর বঙ্গবন্ধুকে হত্যার রাজনীতি বহন করে বিএনপি-জামায়াত দেশের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে। একাত্তর, পঁচাত্তর ও ২১ আগস্টের খুনি পকিস্তানপন্থি এই বিএনপি-জামায়াতকে রাজনীতি ও নির্বাচনের মাঠ থেকে বিতাড়িত করতে হবে।

জাসদের কার্যকরী সভাপতি অ্যাডভোকেট রবিউল আলমের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য দেন দলের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার এমপি, কেন্দ্রীয় নেতা মীর হোসাইন আখতার, অ্যাডভোকেট শাহ জিকরুল আহমেদ, অ্যাডভোকেট হাবিবুর রহমান শওকত, নুরুল আখতার, নাদের চৌধুরী, শফিউদ্দিন মোল্লা, শহীদুল ইসলাম প্রমুখ।