চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলা

খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ আবারও বাড়ল

প্রকাশ: ০৮ আগস্ট ২০১৮      

সমকাল প্রতিবেদক

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন কারাবন্দি খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের দিন পিছিয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার নির্ধারিত দিনে ঢাকার পঞ্চম বিশেষ আদালতের নিয়মিত বিচারক ড. মো. আক্তারুজ্জামান ছুটিতে থাকায় ভারপ্রাপ্ত বিচারক শেখ নাজমুল আলম যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের জন্য আগামী ৫ সেপ্টেম্বর পরবর্তী দিন ধার্য করেন। একই সঙ্গে খালেদা জিয়ার জামিনও ওইদিন পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

পুরান ঢাকার বকশীবাজার আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত বিশেষ আদালতে এ মামলার বিচারকাজ চলছে।

জামিনের মেয়াদ বাড়ানোর বিষয়টি খালেদা জিয়ার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন মেজবাহ সাংবাদিকদের অবহিত করেন।

চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় মোট আসামি চারজন। এ মামলায় সাক্ষ্য দিয়েছেন ৩২ জন সাক্ষী। ২০১০ সালের ৮ আগস্ট তেজগাঁও থানায় জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলা করা হয়। এ ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা লেনদেনের অভিযোগে মামলাটি করে দুদক।

খালেদা জিয়ার জামিনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদন :কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে নৈশকোচে পেট্রোল বোমা মেরে আট যাত্রীকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় বিশেষ ক্ষমতা আইনের মামলায় খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া ছয় মাসের জামিনের বিরুদ্ধে আবেদন করেছে রাষ্ট্রপক্ষ। গতকাল আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী আবেদনটি আগামীকাল বৃহস্পতিবার পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠিয়েছেন।

এর আগে সোমবার হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ খালেদা জিয়াকে ছয় মাসের জামিন দেন। আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম এবং খালেদা জিয়ার পক্ষে ছিলেন খন্দকার মাহবুব হোসেন।

কারাগারে খালেদা জিয়ার ৬ মাস

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কারাবাসের ছয় মাস পূর্ণ হবে আজ বুধবার। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় ঢাকার নাজিমুদ্দীন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছেন তিনি। গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদ দেন আদালত। সাজা দেওয়ার পর থেকে তিনি কারাগারে বন্দি আছেন। তার মুক্তির দাবিতে বিএনপি মানববন্ধন, অনশন, বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশসহ শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করে আসছে।

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত ৩৬টি মামলার মধ্যে তিনটির জামিন এখনও বাকি রয়েছে। আগামী ঈদুল আজহার আগে তার মুক্তি নিয়ে আইনজীবীরা আশান্বিত হলেও সন্দিহান নেতাকর্মীরা।