ভিটামিন 'এ' ক্যাপসুল খাওয়ানো হলো শিশুদের

প্রকাশ: ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

জাতীয় ভিটামিন 'এ' প্লাস ক্যাম্পেইনের আওতায় সারাদেশে শিশুদের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়েছে। গতকাল শনিবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত এক লাখ ২০ হাজার স্থায়ী কেন্দ্রে এবং ২০ হাজার ভ্রাম্যমাণ কেন্দ্রের মাধ্যমে এ ক্যাম্পেইন পরিচালনা করা হয়। এর আওতায় ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ২৫ লাখ ২৭ হাজার শিশুকে নীল রঙের একটি করে ভিটামিন 'এ' ক্যাপসুল এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী এক কোটি ৯৫ লাখ ৭ হাজার শিশুকে লাল রঙের একটি করে ভিটামিন 'এ' ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়।

গতকাল সকালে রাজধানীর শ্যামলীতে ঢাকা শিশু হাসপাতালে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এ ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন করেন। পরে স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাংবাদিকদের জানান, সারাদেশে প্রায় আড়াই কোটি শিশুকে এই ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। আমরা কোনো ঝুঁকি নিতে পারি না। তাই ভিটামিন 'এ' ক্যাপসুল খাওয়ানোর বিষয়ে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। দেশীয় কোম্পানির যে ক্যাপসুলগুলো দিয়ে সারাদেশে ভিটামিন 'এ' পল্গাস ক্যাম্পেইন চলছে, সেগুলো ল্যাবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে শিশুদের খাওয়ানো হচ্ছে।

দেশব্যাপী ক্যাম্পেইনের কথা উল্লেখ করে জাহিদ মালেক বলেন, এই ক্যাপসুল খাওয়ানোর মাধ্যমে শিশুর সুস্থতা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে। মায়েদের প্রতি আহ্বান থাকবে- ক্যাপসুলটি খাওয়ানোর আগে বুকের দুধ খাওয়ান, সুষম খাদ্য খাওয়ান। শিশুর পেট ভরা থাকলে টিকা খাওয়ানোর পর কোনো জটিলতা সৃষ্টি হবে না।

দুর্গম এলাকায় এই ক্যাম্পেইন পরিচালনার পদক্ষেপ তুলে ধরে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ক্যাম্পেইন দিবসেই ভিটামিন 'এ' খাওয়ানো হবে। তবে দুর্গম এলাকা হিসেবে চিহ্নিত ১২ জেলার ৪৬ উপজেলার ২৪০ ইউনিয়নে ক্যাম্পেইন-পরবর্তী চার দিন অর্থাৎ ১০ থেকে ১৩ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়ি বাড়ি গিয়ে শিশুদের সার্চিং কার্যক্রম পরিচালনা করে বাদপড়া শিশুদের ভিটামিন 'এ' ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আসাদুল ইসলাম, ঢাকা শিশু হাসপাতালের সাবেক পরিচালক ডা. আব্দুল আজিজ এমপি, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক অধ্যাপক ডা. সৈয়দ সাফি আহমেদ মোয়াজ প্রমুখ।