চট্টগ্রামে ১০ বছরের এক শিশুকে অপহরণের পর ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় আমির হোসেন জামাল নামে একজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল রোববার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২-এর বিচারক মোতাহের আলী এ রায় দেন। রায়ে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে ছয় মাসের সশ্রম কারাদণ্ড ও দেওয়া হয়।

দণ্ডাদেশপ্রাপ্ত জামাল ফটিকছড়ি উপজেলার ভুজপুর থানার সাপমারা ফকিরেরটিলা এলাকার ওমর আলীর ছেলে।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২-এর পিপি আবু নাসের বলেন, আসামি আমিরকে ফাঁসির রায় দেওয়ার পর কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০০৫ সালের ১৬ মে হাটহাজারী উপজেলার মোখল গ্রামে ফুফুর বাড়িতে বেড়াতে যায় ১০ বছরের শিশু জুলিয়া আক্তার। আসামি জামাল  ওই বাড়িতে দিনমজুরের কাজ করত। সে শিশু জুলিয়াকে অপহরণ করে বাড়ির পাশের নির্জন স্থানে নিয়ে যায়। সেখানে জুলিয়াকে ধর্ষণ করে। বিষয়টি ধামাচাপা দিতে সে জুলিয়াকে শ্বাসরোধে হত্যার পর পাশের খালে লাশ ফেলে দেয়। পরে সেখান থেকে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় জামালকে আসামি করে মামলা করে নিহতের পরিবার।

পুলিশ তদন্ত শেষে ২০০৮ সালের ২৫ আগস্ট অভিযোগপত্র দেয়। ২০০৯ সালের ৮ সেপ্টেম্বর মামলার বিচারকাজ শুরু হয়। মামলায় মোট ১৯ জনের সাক্ষ্য নেন আদালত। সাক্ষ্য শেষে আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৭ ধারা অনুযায়ী যাবজ্জীবন কারাদ ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা এবং একই আইনের ৯(২) ধারা অনুযায়ী মৃত্যুদ ও এক লাখ টাকা অর্থদ দেওয়া হয়।





মন্তব্য করুন