ভাষাশহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা

প্রকাশ: ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

সমকাল প্রতিবেদক ও বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার

ভাষাশহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা

একুশের প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা - সমকাল

একুশের প্রথম প্রহরে মহান ভাষাশহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়েছে জাতি। ১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারি মায়ের ভাষার অধিকার প্রতিষ্ঠায় শাসকের বুলেটের সামনে বুক পেতে রাজপথ রঞ্জিত করেছিলেন জাতির বীর সন্তানরা।

গর্বের একুশকে তাই ভোলেনি বাঙালি। ভাই হারানোর ব্যথা কি সহজে ভোলা যায়!

বাংলা ভাষাকে শৃঙ্খলমুক্ত করতে প্রাণ দেওয়া সালাম, বরকত, রফিক, জব্বার, সফিউরসহ নাম না জানা অসংখ্য শহীদের স্মরণে স্মৃতির মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে জাতি। প্রতি বছরের মতো এবারও অমর একুশের প্রথম প্রহরে রাতের নিস্তব্ধতা ভেঙে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গতকাল বুধবার রাত ১২টা ১ মিনিটে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদিতে জাতির পক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তারা কিছু সময় নীরবে দাঁড়িয়ে মহান একুশের ভাষা আন্দোলনের শহীদদের প্রতি সম্মান জানান। এ সময় 'আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি/আমি কি ভুলিতে পারি' গানের সুর বেজে ওঠে। জাতির পক্ষে শ্রদ্ধা অর্পণের পর দলের পক্ষে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ও জ্যেষ্ঠ নেতারা শহীদ বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য তোফায়েল আহমেদ এমপি, সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী এমপি, কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক, মোহাম্মদ নাসিম এমপি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনিসহ দলের কেন্দ্রীয় নেতারা।

জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর শ্রদ্ধা নিবেদনের পর ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন শ্রদ্ধা জানান। তারপর বিরোধী দলের পক্ষে জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের ও মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গাঁর নেতৃত্বে নেতারা শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

দুর্নীতির দায়ে কারাগারে যাওয়ার আগে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া একুশের প্রথম প্রহরে ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করতেন। তিনি কারাগারে থাকায় দলের পক্ষে প্রথম প্রহরে কেউ শ্রদ্ধা নিবেদন করেননি। দলের পক্ষ থেকে আজ সকালে শ্রদ্ধা জানানো হবে। রাজনৈতিক নেতাদের পর সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ, নৌবাহিনী প্রধান ভাইস অ্যাডমিরাল আওরঙ্গজেব চৌধুরী ও বিমানবাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত সশস্ত্র বাহিনীর পক্ষে বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। পুলিশের পক্ষ থেকে মহাপরিদর্শক ড. জাবেদ পাটোয়ারী শ্রদ্ধা জানান।

ঢাকায় নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত, হাইকমিশনার ও কূটনীতিকরা শ্রদ্ধা নিবেদনের আগে শহীদ বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের আগে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন মহান মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডাররা। এরপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে উপাচার্য ড. আখতারুজ্জামানের নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার শ্রদ্ধা নিবেদন করে। ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষে সভাপতি এ. কে. আজাদ ও সাধারণ সম্পাদক রঞ্জন কর্মকার শ্রদ্ধা জানান। এরপর একে একে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সহযোগী সংগঠন, ছাত্র, যুব, শ্রমিক, কৃষক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ধর্মীয় সংগঠন, সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, সংস্থা, সর্বস্তরের জনতা শ্রদ্ধা নিবেদন করে।