লঞ্চ থেকে ফেলে চলচ্চিত্রকর্মী সাদ্দাম হত্যায় মামলা

প্রকাশ: ০৪ জুন ২০১৯      

বরিশাল ব্যুরো

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন সংস্থার (এফডিসি) শুটিং সহকারী সাদ্দাম হোসেনকে লঞ্চ থেকে নদীতে ফেলে হত্যার ঘটনায় মামলা হয়েছে। সাদ্দামের ভগ্নিপতি মাইনুল ইসলাম রোববার রাতে বাবুগঞ্জ থানায় অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। সাদ্দাম উজিরপুর উপজেলার ওটরা গ্রামের শাহজাহান বেপারীর ছেলে।

মাইনুল ইসলাম জানান, স্বজনদের সঙ্গে ঈদ উদযাপনের জন্য গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া রুটের ফারহান-১০ লঞ্চে রওনা হয় সাদ্দাম। রাতে ফোন করে জানায়, লঞ্চে সে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েছে।

এ সময় অজ্ঞান পার্টির সদস্যদের সঙ্গে হাতাহাতি হলে লঞ্চের কর্মচারীরাও তাকে মারধর করছে। মোবাইল ফোনে এ খবর পেয়ে তিনি সাদ্দামের জন্য বানারীপাড়ার মীরেরহাট লঞ্চঘাটে অপেক্ষা করেন। কিন্তু সাদ্দাম সেখানে পৌঁছায়নি। তার ফোনটিও বন্ধ পাওয়া হয়। রোববার কেদারপুর গ্রামের লোকজন নদীতে একটি লাশ ভাসতে দেখে বাবুগঞ্জ থানায় জানায়। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করলে স্বজনরাও এটি সাদ্দামের বলে শনাক্ত করেন।

সাদ্দামের ভগ্নিপতি অভিযোগ করেন, শুক্রবার রাতে সাদ্দামের খোঁজ না পেয়ে ফারহান-১০ লঞ্চের কর্মচারীদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে এক কর্মচারী সাদ্দামের সঙ্গে সামান্য মারামারির কথা স্বীকার করেন। তবে মামলা দায়েরের পর লঞ্চ কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে কোনো যোগাযোগ করেনি।

বাবুগঞ্জ থানার ওসি দিবাকর চন্দ্র কর মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, লাশের অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে সেটি দু-তিন দিন পানিতে ছিল। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর হত্যা কি-না, তা পুরোপুরি নিশ্চিত হওয়া যাবে।