এজাহারভুক্ত আসামি রাব্বিসহ দু'জন গ্রেফতার

প্রকাশ: ১২ জুলাই ২০১৯      

বরগুনা প্রতিনিধি

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যাকাণ্ডের এজাহারভুক্ত ৬ নম্বর আসামি আল কাইয়ুম ওরফে রাব্বি আকনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এর আগে হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে রাতুল সিকদার নামে আরেকজনকে ভিডিও ফুটেজ দেখে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার রাতে বরগুনা শহরের সেন্ট্রাল হাসপাতাল সড়ক থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে নিজ কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বরগুনার পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন জানান, রাত পৌনে ৯টার দিকে অভিযান চালিয়ে রাব্বি আকনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে কোথা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে সে বিষয়ে কিছু জানাননি তিনি।

পুলিশ সুপার জানান, এ নিয়ে রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় এ নিয়ে এজাহারভুক্ত ছয় আসামি ও হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে সাতজনসহ মোট ১৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের মধ্যে এজাহারভুক্ত তিনজনসহ সাত আসামি হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। এ ছাড়া মামলার প্রধান আসামি নয়ন বন্ড পুলিশের সঙ্গে 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত হয়েছে। এ মামলায় এজাহারভুক্ত আসামিদের মধ্যে মো. রিশান ফরাজী, মো. মুসা, মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত, রায়হান ও রিফাত এখনও পলাতক।

এর আগে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও বরগুনা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. হুমায়ুন কবির গতকাল দুপুরে তাকে বরগুনার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করেন এবং তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। শুনানি শেষে বিচারক মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম গাজী আসামির তিন দিন রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গত ২৬ জুন সকালে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে সন্ত্রাসীরা স্ত্রীর সামনে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করে রিফাত শরীফকে। এ সময় সঙ্গে থাকা স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি সন্ত্রাসীদের বাধা দিয়েও স্বামীকে বাঁচাতে পারেননি। পরের দিন ২৭ জুন রিফাত শরীফের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা পাঁচ-ছয়জনকে আসামি করে বরগুনা থানায় হত্যা মামলা করেন।