বিশ্বকাপ ক্রিকেট

মন খারাপের বিকেল

প্রকাশ: ০৪ জুলাই ২০১৯

জাকির হোসেন, লন্ডন থেকে

মন খারাপের বিকেল

মঙ্গলবার এজবাস্টন গ্যালারিতে বাংলাদেশিদের এই উল্লাস শেষ পর্যন্ত পরিণত হয় বিষাদে -বিসিবি

ভারতের সঙ্গে আমরা জিততে যাচ্ছি- এমন একটা খবর এয়ারপোর্টে নেমেই শুনব, আশা করেছিলাম। গ্যাটউইক এয়ারপোর্টের ইমিগ্রেশন পেরিয়ে ওয়াই-ফাই পেলাম। ইন্টারনেট সংযোগের সঙ্গে সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের বন্ধুদের মেসেঞ্জার গ্রুপে ঢুকেই আপডেট জানলাম। তিন উইকেটে ১২৩ রান, মুশফিক আউট- জানালো এক বন্ধু। মনটা একটু দমে গেল তবে আশাহত হলাম না। ভাবলাম, টাইগারদের ৩১৫ রান করার সক্ষমতা আছে। এ বিশ্বকাপেই তার প্রমাণ আছে।

স্বীকার করতে দ্বিধা নেই, ক্রিকেট সম্পর্কে আমার জানাশোনা একেবারেই কম। খেলার ফলাফল বিশ্নেষণ বা পর্যালোচনা করা আমার পক্ষে দুঃসাধ্য। ২ জুলাই ভোরে টার্কিশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে যখন উঠি, তখন শুধু একটা প্রত্যাশাই করেছি, বাংলাদেশ যেন জেতে। বন্ধু ও সহকর্মীদের কেউ কেউ দুষ্টুমি করে বলেছিল, যাচ্ছ যখন, বাংলাদেশকে কিন্তু দুটো খেলাতেই জেতাতে হবে।

কথাটা মাথায় গেঁথে গিয়েছিল।

মূলত ৫ জুলাই বাংলাদেশ-পাকিস্তান ম্যাচ দেখতে লন্ডনে আসা। এয়ারপোর্টে ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা খেলা দেখতে এসেছি শুনে আর কথা বাড়ালেন না। কোনো দালিলিক প্রমাণ চাইলেন না। শুধু বললেন, গুড লাক ফর ইউর কান্ট্রি। শুনে ভালো লাগল। অথচ ধারণা ছিল এর বিপরীত- অনেক কিছু দেখতে ও জানতে চাইবেন। যাই হোক, এয়ারপোর্ট থেকে বেরিয়ে ট্যাক্সি নিলাম। চালককে বললাম, খেলা শোনা যাবে কি-না? সঙ্গে সঙ্গে রেডিও চালু করল। খেলার ধারাভাষ্য শুনছি আর চারপাশের সুন্দর প্রকৃতি দেখছি। সাকিবের উইকেট পতনের পর সুন্দর প্রকৃতি কেমন যেন বিবর্ণ হয়ে গেল! শুধু ভাবছি, মিরাকল কিছুও তো হতে পারে।

উইন ডিটেক্টর যখন জানালো, বাংলাদেশের জয়ের সম্ভাবনা মাত্র ৬ শতাংশ, তখনও আশা জাগিয়ে রেখেছি। সাইফুদ্দিন-সাব্বির জুটির পারফরমেন্সে মনে হলো, এখনও জেতা সম্ভব। ট্যাক্সিচালকও আলোচনায় যোগ দিলেন। বারবার বলছিলেন, বাংলাদেশের যদি এখন চারটি উইকেট হাতে থাকত, অবশ্যই জিতত। হঠাৎ মাশরাফির ৬-এ জোরে হাততালি দিলাম। তখনও মনে হলো, মিরাকল হতেও তো পারে। পরের বলে অধিনায়ক আউট। বিকেলটা একদম বিবর্ণ, বিমর্ষ মনে হলো।

হোটেলে পৌঁছলাম। মনকে সান্ত্বনা দিলাম এই ভেবে, খেলায় হারজিত থাকবে। বাংলাদেশ তো ভালো খেলে হেরেছে। সেমিফাইনালে না যাক, টাইগাররা বিশ্বক্রিকেটে দেশের অবস্থানকে আরও মজবুত করেছে। বাংলাদেশের জয় হোক। পাকিস্তানের বিপক্ষে টাইগারদের জন্য শুভ কামনা। স্টেডিয়ামে বসে জয় উদযাপন করতে চাই।