শিশুটি ক'টা অরবরই ছিঁড়েছিল...

প্রকাশ: ০৪ অক্টোবর ২০১৯

গাজীপুর প্রতিনিধি

বন্ধুদের সঙ্গে পাশের গ্রামের একটি বাগানে গিয়েছিল অন্তর দাস। সেখানে গিয়ে চতুর্থ শ্রেণিপড়ূয়া শিশুটি বাগানের গাছ থেকে ক'টা অরবরই ছিঁড়ে খেয়েছিল। আর এ কারণেই প্রাণ দিতে হলো শিশুটিকে। অরবরই পাড়ার অপরাধে অন্তর দাসকে বেদম পেটায় বাগানের দায়িত্বে থাকা এক ব্যক্তি। পরে গুরুতর অবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সেখানে ছয় দিন চিকিৎসাধীন থেকে বুধবার সন্ধ্যায় মারা যায় শিশু অন্তর।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ বাড়ি থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। গাজীপুর মহানগরের মজলিশপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মাছ ব্যবসায়ী স্বপন দাসের ছেলে অন্তর দাস লাঠিভাঙ্গা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ত। নরসিংদী থেকে এসে স্বপন দাস পরিবার নিয়ে মজলিশপুর এলাকায় বসবাস করেন। গত শুক্রবার বন্ধুদের সঙ্গে মজলিশপুর ভগবানের টেক এলাকায় একটি বাগানে গিয়ে ক'টা অরবরই ছিঁড়ে খায় অন্তর। এ সময় এক ব্যক্তি ধাওয়া করে অন্তরকে আটক করে এবং অন্য দুই শিশু পালিয়ে যায়। একপর্যায়ে ওই ব্যক্তি অন্তরকে মারধর করে ছেড়ে দেয়। পরে অন্তর অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে নেওয়া হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বুধবার অন্তর মারা যাওয়ার পর স্বজনরা লাশ মজলিশপুর এলাকায় বাড়িতে নিয়ে যান। খবর পেয়ে গতকাল সকালে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

গাজীপুর মহানগর পুলিশের সদর থানার ওসি এজাজ শফি জানান, অভিযুক্ত ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় হত্যা মামলা হবে।