বেগমগঞ্জে ছুরিকাঘাতে কিশোর হত্যা

প্রকাশ: ২১ জানুয়ারি ২০২১

নোয়াখালী প্রতিনিধি

বেগমগঞ্জে ছুরিকাঘাতে কিশোর হত্যা

মাজহারুল ইসলাম তুর্জয়

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলায় নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে উপর্যপুরি ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে। নিহত কিশোরের নাম মাজহারুল ইসলাম তুর্জয়। চৌমুহনী পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের কন্ট্রাক্টর মসজিদ এলাকায় নাজিরবাড়ির সামনে বুধবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে। তুর্জয় চৌমুহনী পৌরসভার উত্তর নাজিরপুর গ্রামের মো. মানিকের ছেলে ও বেগমগঞ্জ টেকনিক্যাল হাইস্কুলের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, তুর্জয় একটি হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে ছিল। ১০-১৫ দিন আগে সে জামিনে মুক্ত হয়। নিহত শিক্ষার্থীর বাবা মো. মানিক জানান, গতকাল বিকেল ৫টার দিকে তুর্জয় ঘর থেকে বের হয়ে তার বন্ধুদের সঙ্গে চৌমুহনী পৌরসভার কন্ট্রাক্টর মসজিদ এলাকায় হাঁটছিল। এ সময় মোটরসাইকেলে তিন-চার অজ্ঞাতপরিচয় অস্ত্রধারী যুবক তাদের ধাওয়া করে। তাদের ধাওয়ার মুখে অপর বন্ধুরা পার্শ্ববর্তী একটি বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নিলেও তুর্জয়কে হামলাকারীরা ধরে ফেলে। এ সময় তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপানো হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে বেগমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। শিক্ষার্থীর বাবা জানান, তুর্জয়ের মৃত্যুর সংবাদ শুনে তার মা মাহফুজা আক্তার সংজ্ঞাহীন হয়ে পড়েছেন। তিনি তার ছেলে হত্যাকারীদের ফাঁসি দাবি করেছেন।

বেগমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অসীম কুমার দাস বলেন, রক্তাক্ত অবস্থায় বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে তুর্জয়কে হাসপাতালে নিয়ে আসে স্থানীয়রা। তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা ও অক্সিজেন সাপোর্ট দিয়ে দ্রুত নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। তার হাত, পেট, পিঠ, কোমর, পাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

বেগমগঞ্জ মডেল থানার ওসি কামরুজ্জামান শিকদার বলেন, নিহত তুর্জয় বখাটে। সে সাত-আট মাস আগে হাসান নামের এক কিশোরকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যা করেছিল। ওই মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে ছিল। গতকাল তুর্জয় তার বন্ধুদের নিয়ে পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড এলাকায় ঘুরতে গেলে প্রতিপক্ষের লোকজন তাকে ধাওয়া করে হত্যা করেছে।