পৃথিবীতে আজ থেকে প্রায় সাড়ে ছয় কোটি বছর আগে রাজত্ব করত ডাইনোসর। দৈত্যাকার এ প্রাণী সম্পর্কে নানান তথ্য মাঝেমধ্যেই সামনে আসে। প্রাগৈতিহাসিক এসব প্রাণী ও জীববৈচিত্র্যের রহস্য উন্মোচনে গবেষণা কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। এবার উঠে এলো একই সময়ের আরেক দানবাকৃতির প্রাণীর তথ্য। সে সময় স্থলভাগে ডাইনোসরের রাজত্ব থাকলেও সমুদ্রে এক ধরনের টিকটিকিরও রাজত্ব ছিল। দেখতে ডাইনোসরের মতো হলেও এর মুখের আকৃতি ছিল প্রায় কুমিরের। প্রাণঘাতী সামুদ্রিক প্রাণী হাঙরেরও কিছু বৈশিষ্ট্য এর মধ্যে ছিল বলে জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অব বাথের বিজ্ঞানীরা। সম্প্রতি ডাইনোসর যুগের মোসাসাউর সরীসৃপের নতুন এ প্রজাতির একটি ফসিল পাওয়া গেছে মরক্কোতে।

গবেষকরা বলছেন, আবিস্কারটি ক্রেটাসিয়াস যুগের জীববৈচিত্র্যের নতুন নিদর্শন। ওই যুগের শেষ দিকে প্রায় ছয় কোটি ৬০ লাখ বছর আগে ডাইনোসর বিলুপ্ত হওয়ার কিছুকাল আগেই এ টিকটিকিগুলো বিলুপ্ত হয়ে যায়। এ প্রজাতির সরীসৃপের দেহ ডাইনোসরের মতো হলেও মুখের আকৃতি ছিল কুমিরের। আর দাঁতগুলো হাঙরের মতো। ভয়ংকর হাঙরের দাঁতের মতো ধারালো এ অস্ত্রের মাধ্যমে এরা খুব সহজেই মাছ শিকার করতে পারত। এমনকি এক কামরেই একটি মাছকে দ্বিখণ্ডিত করতে পারত।

ইউনিভার্সিটি অব বাথের মিনার সেন্টার ফর ইভলিউশনের জ্যেষ্ঠ প্রভাষক ড. নিক লংরিচ বলেন, নতুন এ প্রজাতির টিকটিকির ফসিল পাওয়া যায় মরক্কোর ভূমধ্যসাগর এলাকায়। প্রাগৈতিহাসিক যুগে আফ্রিকান সামুদ্রিক উপকূলে দানবীয় সব শিকারির বিচরণ ছিল। এ অঞ্চলে যেসব শিকারি পাওয়া যেত সেগুলো সম্ভবত আর কোথাও মিলত না। তাদের মধ্যে এই টিকটিকি অন্যতম। সূত্র:ডেইলি মেইল।







মন্তব্য করুন