প্রভুভক্ত বলে কুকুরের আলাদা পরিচিতি আছে। মালিকের নানা কাজে সহায়তা থেকে শুরু করে বিপদের মুহূর্তে পাশে থাকে এ প্রাণী। এবার সেরকমই আরেকটি বিশ্বস্ততার নজির দেখাল এক পোষা কুকুর। মালিকের অসুস্থতায় নিজেকে এক মুহূর্তের জন্যও আড়াল করতে চায়নি সে। তাই তার প্রভু হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর থেকে দিনের পর দিন দরজার সামনে ঠাঁয় দাঁড়িয়ে কাটিয়ে দেয়। টানা ছয় দিন বাইরে দাঁড়িয়ে তার মালিকের সুস্থতার জন্য প্রহর গুনেছে পোষা কুকুরটি। ঘটনাটি ঘটেছে তুরস্কে। গত ১৪ জানুয়ারি মস্তিস্কের সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন ক্যামাল সেনটার্ক নামের এক ব্যক্তি। ৬৮ বছর বয়সী ওই ব্যক্তিকে অ্যাম্বুলেন্সে করে নিয়ে যাওয়ার সময় বোনচুক নামের ওই কুকুরটি তাকে অনুসরণ করে হাসপাতালে যায়। ক্যামালকে তুরস্কের নর্থইন্টার্ন সিটির একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর থেকে বারান্দায় বসে থাকত কুকুরটি।

নিরাপত্তা প্রহরী মুহাম্মেত আকদেনিজ জানান, ক্যামাল সুস্থ হওয়ার আগ পর্যন্ত হাসপাতালের ওই কক্ষের বাইরে বসে থাকত বোনচুক। তার মালিকের স্বাস্থ্যের অবস্থা নিয়ে কুকুরটি এতটাই উদ্বিগ্ন ছিল যে কক্ষের দরজা খোলা পেলেই মাথা ঢুকিয়ে উঁকি মেরে তাকে একনজর দেখার চেষ্টা করত। এভাবে সে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত অপেক্ষা করত। হাসপাতালের কর্মীরাই তার খাওয়া-দাওয়ার ব্যবস্থা করতেন।

হাসপাতালের জনসংযোগ বিভাগের পরিচালক ফুয়াত উগুর বলেন, কারও ক্ষতি করেনি কুকুরটি। মালিকের প্রতি বোনচুকের ভালোবাসা সবার নজর কেড়েছে। সবাই ওকে পেয়ে খুব খুশি ছিল। ক্যামালের মেয়ে বেশ কয়েকবার কুকুরটিকে বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু বাড়ি নিয়ে গেলেও প্রতিবারই কুকুরটি ফের হাসপাতালে চলে এসেছে। ২০ জানুয়ারি ক্যামাল হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলে তার হুইলচেয়ারের পাশেই ছিল কুকুরটি। আনন্দে আত্মহারা বোনচুক বারাবার লাফিয়ে লাফিয়ে ক্যামালের গায়ে ঝাঁপিয়ে পড়ছিল। ক্যামাল বলেন, মানুষের মতোই কুকুরটি আমাদের খুব কাছের একজন। ওর আচরণ মানুষের মতোই, যা সব সময় আনন্দ দেয়। সূত্র :নিউইয়র্ক পোস্ট।

মন্তব্য করুন