আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জনগণ ভোট দেবে না জেনেই বিএনপি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছে। দলটির নেতারা সরকার হটানোর অপচেষ্টায় লিপ্ত। তারা ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে ক্ষমতায় যেতে অন্ধকারে চোরাগলি খুঁজছে।

সোমবার রাজধানীর ফার্মগেটে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে অনুষ্ঠিত ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় অনলাইনে যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, পঞ্চম ধাপের পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের জয়জয়াকারে শেখ হাসিনার নেতৃত্ব ও উন্নয়নের প্রতি জনগণের আস্থার প্রমাণ।

গত রোববার পঞ্চম ধাপের ভোটে ২৯ পৌরসভায় জয়ী হয়েছে আওয়ামী লীগ। বিএনপি জিতেছে মাত্র একটিতে। ভোট কারচুপির অভিযোগ তুলে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। কারচুপির অভিযোগ নাকচ করে ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দেশের বিভিন্ন চলমান প্রকল্প আজ দৃশ্যমান। তাই মানুষ শেখ হাসিনার পক্ষে। বিএনপির আমলে তারা একটাও উন্নয়নের সফলতা দেখাতে পারেনি। তাই তাদের রাজনীতিতে খরা লেগেছে।

সেতুমন্ত্রী বলেন, দেশে এখন আন্দোলনের ইস্যু নেই। শেখ হাসিনার উন্নয়ন ও অর্জনের রাজনীতি সরকারবিরোধী রাজনীতিকে ইস্যু সংকটে ফেলেছে। বিএনপি আন্দোলনের জুতসই ইস্যু না পেয়ে ডুবন্ত মানুষের মতো যা পাচ্ছে, তাই আঁকড়ে ধরার অপচেষ্টা করছে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সবার বিকল্প রয়েছে। শুধু শেখ হাসিনা বিকল্পহীন। বাংলাদেশের জাতীয় রাজনীতিতেও তার বিকল্প নেই। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের অভিযাত্রায় স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে আজ উন্নয়নশীল দেশের তালিকায় উঠে আসতে পেরেছে বাংলাদেশ। আগামী তিন মাসের মধ্যে সম্মেলনের মাধ্যমে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের সব ইউনিটের কমিটি গঠনের নির্দেশ দেন ওবায়দুল কাদের।

মন্তব্য করুন