ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর হেফাজতে ইসলামের সুরে কথা বলেছেন। আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ও সমর্থকরা 'প্রকৃত মুসলমান নয়' বলে তিনি মন্তব্য করেছেন। গত বুধবার ফেসবুক লাইভে এসে নুর বলেন, 'প্রকৃত কোনো মুসলমান আওয়ামী লীগ করতে পারে না।'

বুধবার ছিল পহেলা বৈশাখ ও পবিত্র রমজানের প্রথম দিন। ওই দিন বিকেলে লাইভে এসে ব্যক্তিগত জীবনে তিনি কীভাবে ইসলাম চর্চা করেন, তার কোনো বর্ণনা না দিয়েই পুরোটা সময়জুড়ে আওয়ামী লীগ ও দলটির নেতাকর্মীদের সমালোচনা করেন। নুর বলেন, 'তারা (আওয়ামী লীগ) মুসলমান না। তাদের কোনো বিশ্বাস নেই। একটু খোঁজ নিয়ে দেখেন, তাদের কেউ পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ে কিনা। তারা শরিয়াহ ও সুন্নাহ অনুসারে নিজেদের জীবনযাপন করছে না।' ডাকসুর সাবেক ভিপির এমন বক্তব্যের সঙ্গে হেফাজতে ইসলামের নেতাদের বক্তব্যের মিল পাওয়া যায়। কারণ, তারাও শরিয়াহ আইন অনুসারে দেশ পরিচালনার জন্য আন্দোলন করে যাচ্ছেন এবং বিভিন্ন সময় একই ধরনের বক্তব্য দিয়ে থাকেন।

নুরুল হক নুর আওয়ামী লীগ সমর্থকদের 'চাঁদাবাজ', 'মাদক চোরাকারবারি', 'ধোঁকাবাজ', 'বাটপার'- এমন অনেক নেতিবাচক বিশেষণে আখ্যায়িত করেন। তিনি বলেন, 'তারা (আওয়ামী লীগ) সপ্তাহে এক দিন নামাজ পড়ে, কিন্তু কখনও পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ে না। তারা ঘুষ নেয়, চাঁদাবাজি করে, মাদক চোরাচালান করে এবং টেন্ডার ব্যবসা করে। আবার নিজেদের মুসলমান দাবি করে। কোনো মুসলমান আওয়ামী লীগের সমর্থন করতে পারে না। যারা আওয়ামী লীগ সমর্থন করে, তারা প্রকৃত মুসলমান নয়।'

সম্প্রতি ধর্মীয় উগ্রবাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের এবং হেফাজত নেতার ধর্ম অবমাননাকর তথ্যগুলো সরকারের চাল হিসেবে আখ্যায়িত করেন নুর। তার মতে, আওয়ামী লীগ পরিকল্পিতভাবে তা করছে।

আলেম-ওলামাদের চরিত্র হরণ করা হচ্ছে দাবি করে নুর বলেন, নবী (সা.) ও সাহাবিদের উত্তরসূরি হচ্ছেন আলেম-ওলামা। এটাও হাদিসে আছে- তোমরা আলেম-ওলামাদের সম্মান করো। আওয়ামী লীগের একদল বিকৃত মস্তিস্কের মানুষ, আওয়ামী উগ্রবাদীরা তাদের নিয়ে যে বিদ্বেষ ছড়াচ্ছে, চরিত্র হরণ করছে, তারা মুসলমান হতে পারে না। তাদের কোনো ইমান নেই। একটাও ইমানদার না।

মন্তব্য করুন