দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায় লকডাউনসহ কঠোর পদক্ষেপের মধ্যেই ভারতে করোনায় এক দিনে রেকর্ড মৃত্যু হয়েছে। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত সোমবার দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন এক হাজার ৭৬২ জন। মহামারি শুরুর পর থেকে দেশটিতে এক দিনে এত বেশি মৃত্যু আর হয়নি। এদিকে গতকাল তথ্য অধিকার আইনে ভারতের কেন্দ্র সরকার জানিয়েছে, দেশটিতে ৪৪ লাখ ডোজ টিকা নষ্ট হয়েছে। অন্যদিকে ভারতসহ বিশ্বের ৮০ শতাংশ দেশে নাগরিকদের ভ্রমণ না করতে পরামর্শ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। খবর রয়টার্স ও এনডিটিভির।

টানা ছয় দিন দুই লাখের বেশি রোগী দেখা দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম দেশ ভারতের লাখ লাখ মানুষকে এখন হাসপাতালের শয্যা, অক্সিজেন ও ওষুধ জোগাড়ে লড়াই করতে হচ্ছে।

ভারতীয় কর্মকর্তা ও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ফেব্রুয়ারিতে সংক্রমণের হার কয়েক মাসের মধ্যে কম দেখে সতর্কতায় ঢিলেঢালা ভাব চলে আসায় বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম জনবহুল দেশটিকে এখন খেসারত দিতে হচ্ছে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় রাজধানী দিল্লিতে সোমবার থেকে লকডাউন দেওয়া হয়েছে। দিল্লির পাশাপাশি ভারতের সবচেয়ে জনবহুল রাজ্য উত্তর প্রদেশের অনেক শহরের বাসিন্দারা টুইটারে পরিবারের সদস্যদের হাসপাতালে ভর্তিতে সহযোগিতা করার আকুতি জানিয়ে পোস্ট দিচ্ছেন। অনেকে জানাচ্ছেন অক্সিজেন ও রেমডিসিভির ওষুধের ঘাটতির কথা।

সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে নরেন্দ্র মোদির সরকারের ব্যর্থতার দিকে ইঙ্গিত করে টুইটারে এমনটাই বলেছেন কংগ্রেস সাংসদ মনীষ তিওয়ারি। তিনি বলেছেন, 'ভারতজুড়ে ভয়াবহ পরিস্থিতির চিত্র ফুটে উঠছে। হাসপাতালে শয্যা নেই, অক্সিজেন নেই, টিকা নেই।

এদিকে টিকার ঘাটতি নিয়ে বিভিন্ন রাজ্যের অভিযোগের মুখে ভারতের কেন্দ্র সরকারের তথ্য জানার অধিকার (আরটিআই) দপ্তর জানিয়েছে, গত তিন মাসে দেশের বেশ কিছু রাজ্যে করোনা টিকার বিপুল পরিমাণ ডোজ নষ্ট হয়েছে। টিকার ডোজ নষ্টের জন্য বেশি দায়ী পাঁচ রাজ্য হলো- তামিলনাড়ূ, হরিয়ানা, পাঞ্জাব, মণিপুর ও তেলেঙ্গানা। তবে পশ্চিমবঙ্গসহ বেশ কিছু রাজ্য একটিও টিকার ডোজ নষ্ট করেনি।

ভারতসহ ৮০ দেশ ভ্রমণ না করতে যুক্তরাষ্ট্রের পরামর্শ :সংক্রমণের ভয়াবহ ঊর্ধ্বগতির কারণে ভারতে সব ধরনের ভ্রমণ এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রটেকশন। যুক্তরাজ্যও দেশটিকে তাদের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার 'লাল তালিকা'য় যুক্ত করেছে।

করোনাভাইরাসের মহামারির কারণে বিশ্বের প্রায় ৮০ ভাগ দেশে ভ্রমণ থেকে বিরত থাকতে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের পরামর্শ দিয়েছে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। গণমাধ্যমে পাঠানো দেশটির ভ্রমণবিষয়ক হালনাগাদ গাইডলাইনে বলা হয়েছে, চলমান মহামারি 'পর্যটকদের জন্য নতুন ঝুঁকি' হয়ে দাঁড়াচ্ছে।

এক সপ্তাহে ৫২ লাখ আক্রান্ত- বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা :এক সপ্তাহে ৫২ লাখ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে জানিয়ে সব দেশকে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। মহামারি শুরুর পর এই প্রথম এক সপ্তাহে এত বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হলেন। সংস্থটির মহাসচিব টেড্রোস আধানম গেব্রিয়েসুস বলেছেন, মহামারি আরও ভয়াবহ হয়ে উঠছে। যদিও কিছু দেশ নিজস্ব টিকাদান কর্মসূচির মধ্য দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের পথে রয়েছে। গত সোমবার ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে আধানম বলেন, এখন ২৫ থেকে ৫০ বছর বয়সীরা বেশি করোনা ছড়াচ্ছে। তাদের টিকার আওতায় আনা জরুরি।

মন্তব্য করুন