করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড ভারতে এবার আঘাত হেনেছে প্রবল শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় তকতে। দেশটির আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড়টি মুম্বাইতে এসে রুদ্রমূর্তি ধারণ করেছে। এই শহরে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে গতকাল সোমবার প্রবল বৃষ্টি হয়েছে। ঘণ্টায় বাতাসের গতিবেগ ছিল ১৮৫ কিলোমিটার।

এদিকে, করোনাভাইরাসের প্রাণঘাতী দ্বিতীয় ঢেউয়ে ভারতে প্রায় এক মাস পর প্রথমবারের মতো দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা তিন লাখের নিচে নেমেছে। তবে আগের দিনের চেয়ে মৃত্যু বেড়েছে।

দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানায়, গত চব্বিশ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে দুই লাখ ৮১ হাজার ৩৮৬ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে আর একই সময় মৃত্যু হয়েছে চার হাজার ১০৬ জনের। দেশটিতে ২১ এপ্রিল থেকে ১৬ মে পর্যন্ত ২৫ দিন ধরে দৈনিক তিন লাখের বেশি কভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়। তার পর থেকে এই প্রথম সংখ্যাটি তিন লাখের নিচে নামল।

নতুন আক্রান্তদের নিয়ে দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দুই কোটি ৪৯ লাখ ৬৫ হাজার ৪৬৩ জনে দাঁড়িয়েছে। ২৮ এপ্রিল থেকে ভারতে প্রতিদিন কভিডে তিন হাজারের বেশি রোগীর মৃত্যু হচ্ছে। মৃতের সংখ্যায় যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলের পর বিশ্বে তৃতীয় স্থানে থাকা এ দেশটিতে মোট মৃত্যু হয়েছে দুই লাখ ৭৪ হাজার ৩৯০ জনের।

করোনার তাণ্ডবের মধ্যেই এসেছে ঘূর্ণিঝড় তকতের হানা। এ কারণে গতকাল সোমবার মুম্বাইয়ের কয়েকটি জেলায় করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি বন্ধ রাখা হয়। আর তাঁবু খাটিয়ে যেসব স্থানে করোনা রোগীদের চিকিৎসা চলছিল, তাদের হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। ঝড়ের কারণে ১০ ফুট উঁচু জলোচ্ছ্বাসের সৃষ্টি হতে পারে বলে আবহাওয়া দপ্তর জানায়। প্রায় দেড় লাখ লোককে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। ঝড়ে রোববার পর্যন্ত ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে।

দ্বিতীয় ঢেউয়ে ২৪৪ চিকিৎসকের মৃত্যু :ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন এক বিবৃতিতে বলেছে, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরুর পর থেকে ভারতে করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন ২৪৪ জন চিকিৎসক। তাদের মধ্যে এক দিনে সর্বোচ্চ ৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে কোন দিন এই রেকর্ড মৃত্যু হয়েছে, তা বলা হয়নি বিবৃতিতে।

ভারতে রাশিয়ার তৈরি করোনা টিকা দেওয়া শুরু :রাশিয়ার উদ্ভাবিত কভিড টিকা স্পুটনিক-ভি দেওয়া শুরু হয়েছে ভারতে। গতকাল থেকে দক্ষিণ ভারতের রাজ্য তেলেঙ্গানার রাজধানী হায়দরাবাদে টিকাটি দেওয়া হয়েছে। আজ মঙ্গলবার অল্প্রব্দপ্রদেশের বিশাখাপত্তনামে এবং তারপর ধীরে ধীরে ভারতের অন্যান্য রাজ্যেও এই টিকা দেওয়া হবে। ভারত বিশ্বের বৃহত্তম টিকা রপ্তানিকারক দেশ হলে সম্প্রতি সেখানে এর তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে।

যুক্তরাজ্যের বেশিরভাগ জায়গায় লকডাউন শিথিল :যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কমে আসায় লকডাউন শিথিল করা হচ্ছে। দেশটির ইংল্যান্ড, ওয়েলস ও স্কটল্যান্ডের অধিকাংশ এলাকায় বিধিনিষেধ শিথিল করার পর প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন, করোনার সংক্রমণ কমিয়ে আনার ক্ষেত্রে জনগণকে অবশ্যই সচেতন ভূমিকা পালন করতে হবে।

লকডাউন শিথিল করায় ঘরের মধ্যে সীমিত সংখ্যক মানুষ জড়ো হতে পারবেন। এ ছাড়া একে অপরকে জড়িয়ে ধরতে পারবেন। রেস্তোরাঁয় বসেও এখন খেতে পারবেন দেশটির নাগরিকরা। তবে বিধিনিষেধ শিথিল করা হলেও সতর্ক অবস্থানে রয়েছে ব্রিটিশ সরকার। সপ্তাহে সবাইকে দুবার করোনা পরীক্ষা করাতে হবে।

যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় মৃত্যু ছয় লাখ ছাড়াল :যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ছয় লাখ ছাড়িয়েছে। ওয়ার্ল্ডওমিটার এ তথ্য দিয়েছে। সম্প্রতি দেশটিতে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা কমে এলেও এখন পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্ত ও মৃত্যুর হিসাবে শীর্ষে আছে। মহামারি শুরুর পর থেকে দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মোট তিন কোটি ৩৭ লাখের বেশি মানুষ।

করোনার নতুন ধরনে আক্রান্ত সিঙ্গাপুরের শিশুরা, স্কুল বন্ধ :ভারতীয় ধরনের মতো করোনাভাইরাসের নতুন ধরনে শিশুরা বেশি আক্রান্ত হচ্ছে বলে সতর্ক করেছে সিঙ্গাপুর। এ জন্য চলতি সপ্তাহ থেকে রাজধানী সিঙ্গাপুর সিটির বেশিরভাগ স্কুল বন্ধ করে দিয়ে শিশুদেরও টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

বুধবার থেকে শহরটির সব ধরনের প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও কলেজের পাঠদান সম্পূর্ণরূপে বাড়ি থেকে পরিচালিত হবে। আগামী ২৮ মে পর্যন্ত এই নির্দেশনা বহাল থাকবে। দেশটির শিক্ষামন্ত্রী চ্যান চুন সিং বলেছেন, এ ভাইরাসের কিছু কিছু ধরন বেশি মারাত্মক এবং তারা ছোট শিশুদেরও আক্রান্ত করছে। তবে সম্প্রতি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়া শিশুদের কেউই গুরুতর অসুস্থ নয় এবং তাদের মধ্যে মৃদু লক্ষণ দেখা গেছে বলে জানান মন্ত্রী। সূত্র :বিবিসি, এএফপি ও রয়টার্স।

মন্তব্য করুন