বিশ্বের বেশিরভাগ চলচ্চিত্র উৎসবের একটি করে বাণিজ্যিক শাখা থাকে। কান চলচ্চিত্র উৎসবের বাণিজ্যিক শাখার নাম 'মার্শে দ্যু ফিল্ম'। বিশ্বের বৃহত্তম চলচ্চিত্র বাজার এটি। এখানে চলচ্চিত্র-সংশ্নিষ্ট মানুষ যেমন- প্রযোজক, পরিচালক, পরিবেশক ও কলাকুশলীরা জমায়েত হন। তারা বিভিন্ন প্রকল্পের প্রযোজনা, পরিবেশনা ও নির্মাণ বিষয়ে মতবিনিময় করেন। এই মার্শে দ্যু ফিল্মের 'ডকস ইন প্রগ্রেস' বিভাগে প্রথমবারের 'ডিসিশন মেকার' হিসেবে মনোনীত হয়েছেন বাংলাদেশের তারেক আহমেদ। তিনি দেশের স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ফোরামের প্রতিষ্ঠাকালীন কর্মী ও আন্তর্জাতিক স্বল্পদৈর্ঘ্য ও মুক্ত চলচ্চিত্র উৎসবের সাবেক পরিচালক। তিনি বর্তমানে 'ঢাকা ডকল্যাব'-এর পরিচালক। সম্প্রতি এই চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্বকে এক ই-মেইল বার্তায় কান চলচ্চিত্র উৎসব কর্তৃপক্ষ মার্শে দ্যু ফিল্মের 'ডকস ইন প্রগ্রেস' বিভাগের ডিসিশন মেকার হিসেবে মনোনীত করেছে।

বিষয়টি নিয়ে তারেক আহমেদ বলেন, কানের এবারের আসরের মার্শে দ্যু ফিল্মের 'ডকস ইন প্রগ্রেস' বিভাগের ডিসিশন মেকার হিসেবে মনোনীত হওয়ার খবরে আনন্দিত। আমি মনে করি, এটা আমাদের চলচ্চিত্রের জন্য ইতিবাচক একটি দিক বলতে হয়। কারণ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সিনেমা নির্মাণ ও বিপণন প্রকল্পের সঙ্গে দেশের চলচ্চিত্রের মেলবন্ধন ঘটবে।

এদিকে মর্যাদাসম্পন্ন এই আয়োজনের ৭৪তম আসরের অফিসিয়াল পোস্টার প্রকাশ করেছে কর্তৃপক্ষ। সেই পোস্টারে আমেরিকান কৃষ্ণাঙ্গ নির্মাতা স্পাইক লিকে সম্মান জানানো হয়েছে। পোস্টারে দেখা যাচ্ছে, স্পাইকলির কৌতূহলী চোখ। মাথায় রাখা টুপিতে কান উৎসবের লোগো। ৬৪ বছর বয়সী এই পরিচালকের আধো মুখখানার দু'দিকে দুটি করে পাম গাছ। শূন্যে উড়ছে তিনটি পাখি।

করোনার কারণে গত দুই বছরে দক্ষিণ ফ্রান্সের উপকূলীয় শহরটিতে সিনেমার জৌলুস দেখা যায়নি। তাই তো এই আয়োজনের জন্য ব্যাকুল হয়ে আছে সারাবিশ্ব। অবশেষে আবার কানে চেনা রূপ ফিরে আসতে যাচ্ছে। আগামী ৬ জুলাই শুরু হয়ে উৎসবটি চলবে ১৭ জুলাই পর্যন্ত।

বিষয় : তারেক আহমেদ

মন্তব্য করুন