যুক্তরাষ্ট্রের ফাইজার ও জার্মানির বায়োএনটেক এবং যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ডের তৈরি ভ্যাকসিন করোনাভাইরাসের অতিসংক্রামক ধরন ডেলটার বিরুদ্ধে কার্যকরের উল্লেখযোগ্য প্রমাণ মিলেছে। এরমধ্যে ফাইজার-বায়োএনটেকের দুই ডোজ টিকা করোনার এই ভারতীয় ধরনের বিরুদ্ধে ৮৮ শতাংশ ও অক্সফোর্ডের ৬৭ শতাংশ কাজ করতে সক্ষম। তবে ফাইজারের দুই ডোজের মধ্যে ব্যবধান অন্তত আট সপ্তাহ হতে হবে। নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অব মেডিসিনের প্রকাশিত গবেষণা প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে। করোনার শক্তিশালী ধরন ডেলটা দ্রুত ছড়াতে পারে এবং এতে মৃত্যুও বাড়ছে। এর বিরুদ্ধে টিকাগুলো কতটা কার্যকর তা নিয়ে চলছে গবেষণা। যুক্তরাজ্যের সরকারি সংস্থা পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ডের (পিএইচই) গবেষকরা বলছেন, ফাইজারের টিকা করোনার আরেক ভয়ংকর ধরন আলফার বিরুদ্ধেও ৯৩ দশমিক ৭ শতাংশ কার্যকর। এ ছাড়া অক্সফোর্ডের দুই ডোজ আলফার বিরুদ্ধে ৭৪ দশমিক ৫ শতাংশ কার্যকর। টিকার প্রতি দুই ডোজের মধ্যে কতটা ব্যবধান হলে তা বেশি কার্যকর হবে, তা নিয়েও গবেষণা চলছে। ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকার দুই ডোজ প্রয়োগে বিরতি প্রথমে তিন, পরে ১২ এবং বর্তমানে আট সপ্তাহ করেছে যুক্তরাজ্য সরকার। এতে টিকা বেশি কার্যকর হবে বলে দেশটির গবেষকরা দাবি করছেন। তবে যুক্তরাজ্যের গবেষকদের নতুন এই গবেষণার প্রিভিউ এখনও সম্পন্ন হয়নি। সূত্র :বিবিসি।

মন্তব্য করুন