সব শঙ্কা কাটিয়ে অনুষ্ঠিত হলো বিএফএফ-সমকাল জাতীয় বিজ্ঞান বিতর্ক উৎসব ২০২১-এর চূড়ান্ত আসরের প্রথম পর্বের প্রতিযোগিতা। অনলাইন প্ল্যাটফর্মে অনুষ্ঠিত এ প্রতিযোগিতায় বিভাগীয় ও ঢাকা মহানগরের ১৬টি দল অংশ নেয়। ৯ অঞ্চলের ১৬ স্কুল অবতীর্ণ হয় শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে। এবারের আসরের চূড়ান্ত পর্বে আসা ১৬ দলের ৯টিই ছিল ঢাকার বাইরের।

'করোনায় মানবিক বিপর্যয় অর্থনীতির নয় বরং সামাজিক সম্পর্কের ভিত নাড়িয়ে দিয়েছে, তথ্যপ্রযুক্তির অবাধ ব্যবহার শিক্ষার্থীদের বই বিমুখ করছে, নারীর অগ্রযাত্রা বিঘ্নিত করতে সমাজ নয়, অর্থনীতিই দায়ী এবং জিএম ফুড আশীর্বাদ নয়, অভিশাপ।' এ চারটি বিষয়ে মোট দুই দফায় আটটি বিতর্ক অনুষ্ঠিত হয়। যুক্তি-পাল্টা যুক্তিতে প্রতিপক্ষকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করে আজ বিতর্ক উৎসবে অংশ নিচ্ছে ঢাকার হলি ক্রস গার্লস হাই স্কুল, মতিঝিল সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়, কুমিল্লার নবাব ফয়জুন্নেছা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, বগুড়ার বিয়াম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, বরিশালের সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, জামালপুরের মামুন স্মৃতি পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়, খুলনার সরকারি করোনেশন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় এবং চাঁদপুরের আল আমিন স্কুল অ্যান্ড কলেজ।

বছরের শুরুতেই দেশে কভিড-১৯ মহামারি পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হলে শুরু হয় জেলা পর্যায়ের উৎসব। উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ১৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ৫ মার্চ জেলা পর্যায়ের বিতর্ক শেষে ১২ মার্চ শুরু হয় বিভাগীয় উৎসব। ২৭ মার্চ ময়মনসিংহে আয়োজিত প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে শেষ হয় বিভাগীয় আয়োজন। করোনার তীব্রতা বৃদ্ধিতে কয়েক দফায় তারিখ পেছানোর পর গতকাল শুরু হলো চূড়ান্ত আসরের প্রথম পর্বের বিতর্ক। আজ কোয়ার্টার ফাইনালে বিতর্ক প্রতিযোগিতায় অংশ নেবে প্রথম পর্বের বিজয়ীরা। সেমিফাইনাল ও ফাইনাল অক্টোবরের দ্বিতীয় সপ্তাহে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে।

প্রথম পর্বের বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন কৃতী বিতার্কিক মাজেদ আজাদ, কৌশিক আজাদ প্রণয়, ইমরান এইচ তালুকদার, অঙ্কন বিশ্বাস, মোজাম্মেল হক তন্ময়, ইফতেখারুল ইসলাম, সাফওয়াত সায়মা অর্পি, শাকিল আহমেদ ফারহান আনজুম করিম, ইমরান এইচ তালুকদার, নূর আহম্মদ হোসেন, দ্বীন ইসলাম প্রমুখ। মডারেটরের দায়িত্ব পালন করেন সাবেক বিতার্কিক ও সমকালের সিনিয়র সহসম্পাদক হাসান জাকির।

সমকাল সুহৃদ সমাবেশের সহসম্পাদক মো. আসাদুজ্জামানের সমন্বয়ে অনলাইনে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতা নিয়ন্ত্রণে ছিলেন ঢাকার সুহৃদ ফরিদুল ইসলাম নির্জন, শাহীন আলম শাওন, ফাহাদ আনোয়ার, সাদ রহমান, বিপ্লব প্রমুখ।

চূড়ান্ত আসরে অংশ নেওয়া অন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হলো- খুলনার ইন্টারন্যাশনাল গ্রামার স্কুল, ফেনীর সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, সোনারগাঁ জিআর ইনস্টিটিউশন, নারায়ণগঞ্জ, ঢাকার কামরুননেসা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, ধানমন্ডি গভ. বয়েজ হাই স্কুল, আরমানিটোলা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ও ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ।

২০১৩ সালে শুরু হয় বিএফএফ-সমকাল বিজ্ঞান বিতর্কের যাত্রা। 'বিতর্ক মানেই যুক্তি, বিজ্ঞানে মুক্তি' শিরোনামে দেশের ৬৪ জেলার ৫২০টি স্কুলের বিতার্কিক দল নিয়ে অষ্টমবারের মতো অনুষ্ঠিত হচ্ছে এ আয়োজন, যা শুরু হয়েছিল চলতি বছরের ১৪ মার্চ। মাধ্যমিক পর্যায়ের অষ্টম, নবম ও দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের নিয়ে সনাতনী পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হয় বিতর্ক। শিক্ষার্থীদের মধ্যে ভীতি কাটিয়ে বিজ্ঞানের জয়গান গাওয়ার লক্ষ্য নিয়েই শুরু হয়েছিল বিজ্ঞানবিষয়ক এই স্টু্কল বিতর্ক প্রতিযোগিতা। আগামীতেও এ ধারা অব্যাহত থাকবে।

মন্তব্য করুন