দেশে গত চব্বিশ ঘণ্টায় আরও ২৮৯ জনের দেহে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়েছে, মৃত্যু হয়েছে আরও পাঁচজনের। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গতকাল সোমবার সকাল পর্যন্ত চব্বিশ ঘণ্টায় শনাক্ত রোগীদের নিয়ে দেশে এ পর্যন্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ লাখ ৬৭ হাজার ৯৮১ জনে, মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৭ হাজার ৮২৮ জন।

নতুন শনাক্তদের মধ্যে ২১০ জনই ঢাকা জেলার, যা সারাদেশের মোট শনাক্তের তিন-চতুর্থাংশ। আর যারা মারা গেছেন, তাদের দু'জন ঢাকার, দু'জন চট্টগ্রামের এবং একজন খুলনার বাসিন্দা ছিলেন। আগের দিন রোববার দেশে ২৭৫ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছিলেন, মৃত্যু হয়েছিল ৯ জনের। সে হিসাবে মৃত্যু কমলেও শনাক্ত কিছুটা বেড়েছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে, চব্বিশ ঘণ্টায় করোনা থেকে সেরে উঠেছেন ৪১৩ জন।

দেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল গত বছরের ৮ মার্চ। গত ৩১ আগস্ট তা ১৫ লাখ পেরিয়ে যায়। এর আগে ডেল্টা ধরনের ব্যাপক বিস্তারের মধ্যে ২৮ জুলাই দেশে রেকর্ড ১৬ হাজার ২৩০ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়।

প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর গত বছরের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এ বছর ১৪ সেপ্টেম্বর তা ২৭ হাজার ছাড়িয়ে যায়।

বিশ্বে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা এরই মধ্যে ৪৯ লাখ ৪৭ হাজার ছাড়িয়েছে। আর শনাক্ত হয়েছে ২৪ কোটি ৩৬ লাখের বেশি রোগী।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত এক দিনে সারাদেশে মোট ২০ হাজার ৭৭৩ নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। নমুনা পরীক্ষা অনুযায়ী শনাক্তের হার ১ দশমিক ৩৯ শতাংশ, যা আগের দিন ১ দশমিক ৪৯ শতাংশ ছিল। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার দাঁড়িয়েছে ১৫ দশমিক ৩১ শতাংশ; মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৭৭ শতাংশ।

গত এক দিনে যারা মারা গেছেন তাদের মধ্যে তিনজনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি এবং দু'জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে।





মন্তব্য করুন