কলমাকান্দায় ছাত্রলীগ ছাত্রদল সংঘর্ষে আহত ৭

প্রকাশ: ২৬ আগস্ট ২০১৪      

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

কলমাকান্দা ডিগ্রি কলেজে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে রোববার বিকেলে ছাত্রদল ও ছাত্রলীগের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে উভয় পক্ষের সাতজন আহত হয়। এ সময় উপজেলা বিএনপি অফিস ও কেন্দ্রীয় নেতা ব্যারিস্টার কায়সার কামালের চেম্বার, বিএনপি নেতাকর্মীদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভাংচুর চালানো হয়।
রোববার বিকেলে কলমাকান্দা ডিগ্রি কলেজের অধিপত্য বিস্তার নিয়ে ছাত্রলীগকর্মী সোহেলের সঙ্গে ছাত্রদলকর্মী সৌরভ, আল আমীনের কথা কাটাকাটি হয়।
এক পর্যায়ে দু'পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে ছাত্রদলকর্মী আল আমীন, সৌরভ, রয়েল, তরিকুল ইসলামসহ উভয় পক্ষের সাতজন আহত হয়। এরই জের ধরে সরনের নেতৃত্বে ২০-২৫ জন যুবক উপজেলা সদরে বিএনপি অফিস ও কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার কায়সার কামালের চেম্বারে হামলা চালিয়ে চেয়ার টেবিল ও চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ছবি ভাংচুর করে।
পরে হামলাকারীরা মিছিল করে উপজেলা বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক আবদুস সালাম কেরন, উপজেলা ওলামাদলের যুগ্ম সম্পাদক আমিরুল ইসলাম ও ছাত্রদল নেতা রতনের দোকান ভাংচুর করে। এ ছাড়া সোমবার সকালে ছাত্রদলকর্মী আল আমীনের বাবা ফরিদ মিয়াকে বের করে দোকান বন্ধ করে দিয়েছে তারা।
কলমাকান্দা উপজেলা বিএনপির সভাপতি এমএ খায়ের জানান, সরনের নেতৃত্বে কিছু যুবক দলীয় কার্যালয়ে অতর্কিত হামলা চালিয়ে বিএনপি অফিসের চেয়ার টেবিল ও চেয়ারপারসনের ছবি রাস্তায় ফেলে ভাংচুর করে।
ওসি মো. আবদুল করিম বলেন, সরনের নেতৃত্বে স্থানীয় কিছু যুুবক বিএনপি অফিসে ভাংচুর করেছে। এ ব্যাপারে থানায় কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি।
উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক শাহরিয়ার হোসেন মনির সংঘর্ষের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, কলেজে ছাত্রদলের কয়েক ছেলে বাড়াবাড়ি করায় এ সমস্যা হয়েছিল। পরে বিষয়টি এলাকাভিত্তিক হয়ে যায়।