রাঙ্গুনিয়া উপজেলার পারুয়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডে পারুয়া ইছামতি নদীর ওপর গড়ে ওঠা রাবার ড্যাম ৫ ইউনিয়নের সার্বিক চিত্র বদলে দিয়েছে। ৫টি ইউনিয়নের ২ হাজার একর অনাবাদি জমিতে বর্তমানে নতুনভাবে চাষাবাদ হচ্ছে। এ ছাড়া রাবার ড্যামের ব্রিজের কারণে পারুয়া ইউনিয়নের সঙ্গে স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ইউনিয়ন, লালানগর ইসলামপুর ইউনিয়ন ও রাজানগর ইউনিয়নের সঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হয়েছে। রাবার ড্যাম নির্মিত হওয়ায় রাবার ড্যামের সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য প্রতিদিন দূর-দূরান্ত থেকে শত শত নারী-পুরুষ ছুটে যাচ্ছে। রাবার ড্যাম নির্মিত হওয়ার পর ৫ ইউনিয়নের দুই হাজার একর অনাবাদি জমিতে নতুনভাবে চাষাবাদ হচ্ছে। রাবার ড্যামের দুই পাশে নদীভাঙন তীব্র আকার ধারণ করছে। বিশেষ করে রাবার ড্যামের নিচে মুজিবুর রহমান তালুকদারের বাড়ি থেকে ওপরে লাঠিছড়া পর্যন্ত দুই পাশে ভাঙন প্রতিরোধে ব্লক বসানো জরুরি। ১৬ জানুয়ারি শনিবার আনুষ্ঠানিকভাবে রাবার ড্যাম উদ্বোধন করবেন সাবেক পরিবেশ ও বনমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি। এ উপলক্ষে পারুয়ায় একটি জনসভারও আয়োজন করা হয়েছে। রাবার ড্যাম হওয়ার আগে ৫টি ইউনিয়নের দুই হাজার একর জমি অনাবাদি থাকত। এসব এলাকার জমিতে চাষাবাদ থেকে বঞ্চিত ছিল শত শত কৃষক। এখন অনাবাদি জমিতে কৃষিকাজ ও সবজি চাষাবাদে এলাকার আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ব্যাপক অবদান রাখছে। কৃষকরা নতুন করে স্বপ্ন দেখছেন এলাকার সার্বিক উন্নয়নে। রাবার ড্যাম ও ব্রিজ নির্মিত হওয়ায় এলাকার পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী নতুনভাবে ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন দেখছে। ইছামতি রাবার ড্যাম এলাকার বিস্তীর্ণ অংশে মৎস্য চাষে অপার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। সম্মিলিত উদ্যোগে মৎস্য চাষ করা হলে এলাকার অর্থনৈতিক উন্নয়নের ব্যাপক ভূমিকা রাখবে। এ ছাড়াও শীতকালীন সবজি আবাদে রাবার ড্যামের ব্যাপক সুফল পাবেন শত শত কৃষক।
রাবার ড্যাম প্রকল্প পরিচালক বিএডিসির চিফ ইঞ্জিনিয়ার মো. হাফিজ উল্লাহ জানান, কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীন বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনের (বিএডিসি) সার্বিক তত্ত্বাবধানে জলবায়ু ট্রাস্টের অর্থায়নে ১৪ কোটি টাকা ব্যয়ে পারুয়া সৈয়দনগর এলাকায় রাবার ড্যাম প্রকল্প শুরু হয়। পুরো কাজ শেষ হওয়ায় এলাকার হাজারো মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে এবং কৃষিকাজে অভূতপূর্ব বিপ্লব ঘটবে। এর সুফল শত শত কৃষক পাচ্ছেন।
পারুয়া ইছামতি রাবার ড্যাম পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতির সভাপতি মো. জহুরুল ইসলাম জানান, রাবার ড্যাম নির্মিত হওয়ার পর শুষ্ক মৌসুমে চাষাবাদ হচ্ছে। বিশেষ করে পারুয়া হাজারী বিল, চৌধুরী বিল, সিকদার বিল, ছোট বিল, বড় বিল, সেবা খোলা বিল, উত্তর পারুয়া বিল, হোছনাবাদ ইউনিয়নের কালাজী তালুকদার বিল, কবুতর বিল, শাহ বিল, লালানগর ইউনিয়নের ঝনোয়ার বিল, জইন্যা বিল, দক্ষিণ রাজা নগর ইউনিয়নের ফুল বাগিছা বিল, দোয়ানী বিল, শিয়াল বুক্কা দরগাহ বিল ও স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ইউনিয়নের ঈদগাহ বিলে পানির অভাবে আগে কোনো চাষাবাদ হতো না। এলাকাবাসীর দাবির মুখে রাঙ্গুনিয়ার এমপি ড. হাছান মাহমুদ এমপি পারুয়া ইউনিয়নে রাবার ড্যাম নির্মাণে প্রকল্প গ্রহণ করেন।
পারুয়া ইউপি চেয়ারম্যান জাহেদুর রহমান তালুকদার জানান, ইছামতি নদীতে রাবার ড্যাম নির্মিত হওয়ার পর এলাকার আমূল পরিবর্তন এসেছে। পাশাপাশি ব্রিজ নির্মাণে এই ইউনিয়নের সঙ্গে যোগাযোগ ও কৃষি কাজে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। স্বনির্ভর রাঙ্গুনিয়া ইউপি চেয়ারম্যান রহিম উদ্দিন চৌধুরী জানান, রাবার ড্যাম পারুয়া ইউনিয়নে নির্মিত হলেও আমার ইউনিয়ন পাশাপাশি হওয়ায় এর সুফল ভোগ করছেন এলাকার শত শত কৃষক।
রাঙ্গুনিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম মজুমদার জানান, পারুয়া ইউনিয়নসহ ৫ ইউনিয়নের আমূল চিত্র পাল্টে দিয়েছে রাবার ড্যাম। অনাবাদি জমিতে চাষাবাদ হওয়ায় কৃষকের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটেছে।

মন্তব্য করুন