সুন্দরগঞ্জে আ'লীগের সম্মেলন

কমিটি না হওয়ায় মঞ্চ ভাংচুর প্রতিবাদ সমাবেশ

প্রকাশ: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৬      

গাইবান্ধা প্রতিনিধি ও সুন্দরগঞ্জ সংবাদদাতা

সুন্দরগঞ্জে উপজেলা আওয়ামী লীগের কাউন্সিলে বৃহস্পতিবার এমপি লিটনবিরোধী নেতাকর্মীরা সম্মেলনের মঞ্চ ও তোরণ ভাংচুর করে। পরে তারা বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু ম্যুরাল চত্বরে এক প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে।
বৃহস্পতিবার সুন্দরগঞ্জ ডিডবি্লউ ডিগ্রি কলেজ মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন আয়োজন করা হয়। উপজেলা সভাপতি ও সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি। প্রথম অধিবেশনে জাতীয় সংসদের হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি এমপি, আবুল কালাম আজাদ এমপি, সংসদ সদস্য উম্মে কুলসুম স্মৃতি, আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক মাহামুদ হাসান রিপন, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ প্রশাসক সৈয়দ শামস্-উল আলম হিরু প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
প্রথম অধিবেশন শেষে বিরতি দিয়ে অতিথিরা সম্মেলন স্থল থেকে এমপি লিটনের বামনডাঙ্গাস্থ বাড়িতে মধ্যাহ্ন ভোজের জন্য যান। কিন্তু দীর্ঘ সময়ও অতিথিরা ফিরে না আসায় স্থানীয় নেতাকর্মী ও কাউন্সিলরদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে তারা এমপি লিটনবিরোধী স্লোগান দিতে দিতে ভাংচুর শুরু করে। তারা এমপি মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনের নির্মিত তোরণগুলো ভেঙে ফেলে। সন্ধ্যার পর তারা বঙ্গবন্ধু ম্যুরাল চত্বরে এক প্রতিবাদ সমাবেশে করে। এ সময় বক্তব্য রাখেন আবদুল্লাহ আল মামুন, সাজেদুল ইসলাম, জুলফিকার আল মামুন ভুটটু, সন্তোষ কুমার বিকাশ প্রমুখ। বক্তারা উপজেলা সভাপতি এমপি লিটন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা আহমেদকে সুন্দরগঞ্জে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন।
এ ব্যাপারে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী সাজেদুল ইসলাম বলেন, অনুষ্ঠান স্থলে নতুন কমিটি গঠন না করায় বিক্ষুব্ধ হয়ে নেতাকর্মীরা ওই ভাংচুরের ঘটনা ঘটায়। এমপি মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন বলেন, অতিথি ও কাউন্সিলররা মধ্যাহ্ন বিরতিতে গেলে কমিটি ঘোষণা হয়েছে ভেবে কতিপয় নেতাকর্মী ওই ভাংচুরের ঘটনা ঘটান।