নোয়াখালীর চাটখিল দক্ষিণবাজার-খিলপাড়া উত্তর বাজার পর্যন্ত ৯ কিলোমিটার সড়ক পুরোটাই খানাখন্দে ভরা। এক যুগ ধরে সংস্কার না করায় সড়কের এই করুণ

অবস্থা। সড়কের ওপর দিয়ে যানবাহন চলে হেলেদুলে। এতে করে এ সড়ক দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে চাটখিল-সোনাইমুড়ী ও লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার তিন লক্ষাধিক নানা পেশার মানুষ দীর্ঘদিন ধরে দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। সড়কটি দ্রুত সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় এলাকাবাসী। সড়কটি সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের অধীনে।

সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী, নোয়াখালী কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, চাটখিল দক্ষিণ বাজার থেকে খিলপাড়া বাজার পর্যন্ত সড়কটির দৈর্ঘ্য ৯ কিলোমিটার। নোয়াখালী জেলার চাটখিল, সোনাইমুড়ী ও লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা ও চন্দ্রগঞ্জ থানার তিন লক্ষাধিক মানুষ সড়কটি ব্যবহার করে থাকেন। তারা এ সড়ক দিয়ে অতি অল্প সময়ে লক্ষ্মীপুর সদর, চাটখিল ও সোনাইমুড়ী উপজেলা সদরে ও চন্দ্রগঞ্জে থানা এলাকায় যাতায়াত করতে পারতেন। কিন্তু বর্তমানে ৯ কিলোমিটারের এ সড়ক দিয়ে যাতায়াতে অনেক সময় ব্যয় করতে হচ্ছে।

তা ছাড়া জীবনের ঝুঁকি তো রয়েছে। এই ৯ কিলোমিটার সড়কের ওপর দিয়ে প্রতিদিন তিন শতাধিক মাইক্রোবাস, পিকআপ ভ্যান, ট্রাক, অটোরিকশা, ইজিবাইক, মোটরসাইকেল, ব্যাটারি ও পায়ে চালিত রিকশা চলাচল করে থাকে।

গত শুক্রবার সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, চাটখিল উপজেলার দক্ষিণ বাজার সোনালী ব্যাংক চত্বর থেকে সড়কটি শুরু হয়েছে। সড়কটির শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ৯ কিলোমিটারই বিভিন্ন স্থানে পিচ উঠে গিয়ে বড় বড় গর্ত ও খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। এই বর্ষায় গর্তে বৃষ্টির পানি জমে তা মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। সড়কটি চাটখিল দক্ষিণ বাজার থেকে উপজেলার খিলপাড়া বাজারে মিলিত হয়েছে। সড়কজুড়েই কয়েকশ' স্থানে খানাখন্দে ভরা। সড়কটির ওপর দিয়ে রাতের আঁধারে অটোরিকশা, ইজিবাইক, সিএনজিচালিত অটোরিকশা, মালবাহী ট্রাক ও পিকআপ ভ্যান প্রায়ই গর্তে পড়ে নষ্ট হচ্ছে মূল্যবান যন্ত্রাংশ; আহত হচ্ছে মানুষ।

খিলপাড়া বাজারের ব্যবসায়ী মানিক মিয়া, হারুনুর রশিদ, মফিজ ভূঁইয়াসহ অনেকেই বলেন, এক যুগ ধরে সড়কটি সংস্কার না হওয়ায় এতে বড় বড় গর্ত ও খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। সড়কটির পুরো অংশেই

কোনো পিচ নেই। রাস্তাটি এতই খারাপ যে এর ওপর দিয়ে চলাচল খুবই ঝুঁকিপূর্ণ।

এ ব্যাপারে সড়ক ও জনপথ বিভাগের নোয়াখালী কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী বিনয় পাল বলেন, চাটখিল সোনালী ব্যাংক চত্বর থেকে দক্ষিণ দিকে ৭৫০ মিটার আরসিসি ঢালাই ও বাকি সড়কটুকু সংস্কারের জন্য এমপিএম প্রজেক্টে দেওয়া হয়েছে। সহসাই এর সংস্কারের কাজ শুরু হবে।

মন্তব্য করুন