১১ মে সমকালের শেষের পাতায় বছরে ছয় মাস বিদেশ থাকেন প্রধান শিক্ষক- এ শিরোনামে রিপোর্ট প্রকাশের পর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তার নির্দেশে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করেছেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা।

বেতবাড়ি থানারপাড় উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আজিজুল হক মাসের পর মাস নিয়মবহির্ভূতভাবে বিদেশে অবস্থান করায় বিষয়টি তদন্ত করেন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা নাসরিন আক্তার। তদন্তে ঘটনার সত্যতা পেয়ে জেলা শিক্ষা অফিস বরাবর তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন তিনি।

তদন্ত প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে চার বছর ধরে কোন আইনে প্রধান শিক্ষক দেশের বাইরে অবস্থান করছেন তার ব্যাখ্যা চেয়ে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিকে চিঠি দিয়েছেন জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা।

এ বিষয়ে ময়মনসিংহ জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম বলেন, প্রধান শিক্ষকের বিদেশে থাকার বিষয়টি পত্রিকায় জানতে পেরেই বিষয়টি তদন্তের নির্দেশ দিই। তদন্ত রিপোর্টে সত্যতা পেয়েছি। তাই কোন আইনের বলে স্কুল কমিটির সভাপতি তাকে ছুটি দিয়েছেন তার ব্যাখ্যা চেয়ে চিঠি পাঠিয়েছি বিদ্যালয় কমিটির সভাপতির কাছে। চিঠির উত্তর পাওয়ার পরই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।

ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলার এনায়েতপুর ইউনিয়নের বেতবাড়ি থানারপাড় উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আজিজুল হক কয়েক বছর ধরে কানাডা প্রবাসী। মাঝে মধ্যে ছুটিতে এসে তিনি দায়িত্ব পালন করে বিদেশে চলে যান। বাকি সময় বিদ্যালয়টি চলে প্রধান শিক্ষক ছাড়াই। তবে প্রধান শিক্ষক হিসেবে তিনি বিদ্যালয়ের সব সুবিধা ভোগ করেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ছাড়া বিদেশে থেকেও স্কুল ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্যদের ম্যানেজ করে চার বছর ধরে প্রধান শিক্ষকের পদে আজিজুল হক বহাল রয়েছেন বলে অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নাসরিন আক্তার বলেন, আমি এই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে যতবারই অফিসে আসতে বলেছি ততবারই ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক এসে অফিসে হাজির হন। এখন তদন্ত করে বিষয়টি বুঝতে পেরেছি, ঘটনা কী!

মন্তব্য করুন