বখাটের উৎপাতে ছাত্রীর লেখাপড়া বন্ধের উপক্রম

আমতলী

প্রকাশ: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি

তালতলীতে বখাটের উৎপাতে স্কুলছাত্রীর জীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। সে স্কুলে যাওয়া বন্ধ করার পর শিক্ষকদের সহায়তায় পুনরায় স্কুলে গেলেও ভয়ে আর আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটে কখন দুর্ঘটনা ঘটায় বখাটে শাহিন। এই আতঙ্কে লেখাপড়াও হচ্ছে না তার। এলাকার চেয়ারম্যানের কাছে অভিযোগ দেওয়ার পরও কোনো প্রতিকার পাচ্ছে না তার পরিবার।

কড়ইবাড়িয়া কারিগরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের ওই ছাত্রীকে স্কুলে আসা-যাওয়ার পথে পার্শ্ববর্তী শহিদ গাজীর বখাটে ছেলে শাহিন (৩০) উত্ত্যক্ত করে আসছে। এর আগে শাহিন দুটি বিয়ে করে তাদের তালাক দিয়েছে। বর্তমানে পথে-ঘাটে এই স্কুল ছাত্রীকে বিয়ের প্রস্তাব দেয় সে। এতে ওই ছাত্রী রাজি না হওয়ায় তাকে হত্যা বা এসিড নিক্ষেপ করে তার জীবনকে শেষ করে দেওয়ার হুমকি দেয় শাহিন। ঘটনার প্রতিকার ও নিরাপদে স্কুলে যাওয়ার জন্য ওই ছাত্রীর বাবা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে জানিয়েও কোনো প্রতিকার পাননি।

কড়ইবাড়িয়া কারিগরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ খবির উদ্দিন পনু তালুকদার বলেন, কয়েকদিন ধরে ওই ছাত্রী স্কুলে না আসায় তাদের বাড়ি গিয়ে খবর নিয়েছি। প্রায়ই ওই বখাটে শাহিন যাওয়া-আসার পথে ও রাতে বাড়িতে ওতপেতে ভয় দেখায় ছাত্রীকে। ফলে সে নিয়মিত স্কুলে আসতে পারে না।

শারিকখালী ইউপি চেয়ারম্যান আবুল বাশার তালুকদার জানান, অভিযোগ পেয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চৌকিদারের মাধ্যমে শাহিনের কাছে নোটিশ পাঠানো হয়েছে। শাহিন ও তার অভিভাবকরা সে নোটিশ না রেখে চৌকিদারকে গালাগাল করে তাড়িয়ে দিয়েছে। তালতলী থানার ওসি পুলক চন্দ্র রায় জানান, ওই ছাত্রীর অভিভাবকের মাধ্যমে ঘটনা শুনেছি। তবে মামলা করেননি। থানার একজন এএসআইর মাধ্যমে তদন্তও করিয়েছি। মামলা হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।