বগুড়ায় ছুরিকাঘাতে সন্ত্রাসী নিহত

প্রকাশ: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

বগুড়া ব্যুরো

বগুড়ায় মদ পান করা নিয়ে বিরোধের জেরে দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে শাকিল আহমেদ নামে এক সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। এ ঘটনায় বিশাল নামে তার এক সহযোগী আহত হয়েছে। গত শুক্রবার রাতে শহরের চকসূত্রাপুর সুইপার পট্টিতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শাকিল শহরের লতিফপুর কলোনি এলাকার শাজাহান আলীর ছেলে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হতাহতদের সহযোগী মিশুকে আটক করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, শাকিল ও বিশাল দু'জনই পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী। তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে। কয়েক বছর আগে পুলিশের গুলিতে পা হারায় শাকিল। শুক্রবার শাকিলের জন্মদিন ছিল। মদ পানের মাধ্যমে দিনটি উদযাপনের জন্য রাতে সে তার দুই সহযোগী বিশাল ও মিশুকে নিয়ে মোটরসাইকেলে চকসূত্রাপুর রানার সিটির বিপরীতে সুইপার পট্টিতে যায়। সেখানে অন্য আরও কয়েকজন মদ পান করছিল। শাকিল ও তার সহযোগীরা মদ পানের সময় সিনিয়র-জুনিয়র ইস্যুতে অন্যদের সঙ্গে তাদের বাক-বিতণ্ডা হয়। তারই এক পর্যায়ে শাকিল ও বিশালকে ছুরিকাঘাত করা হয়। তখন সঙ্গে থাকা মিশু ছুরিকাহত দু'জনকে মোটরসাইকেলে তুলে সদর থানার দিকে রওনা হয়। রাত ১০টার দিকে তারা সদর থানার ফটকের সামনে পৌঁছার পর পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন তাদের দু'জনকে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে পাঠায়। এ সময় মিশুকে আটক করা হয়। শজিমেক হাসপাতাল সংলগ্ন ছিলিমপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আবদুল আজিজ মণ্ডল জানান, হাসপাতালে নেওয়ার পরপরই শাকিলের মৃত্যু হয়।

বগুড়া পুলিশের মিডিয়া বিভাগের প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী জানান, এ হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের শনাক্ত করা হয়েছে। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

সদর থানার ওসি বদিউজ্জামান জানান, এ ঘটনায় শনিবার বিকেল পর্যন্ত পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় কোনো মামলা করা হয়নি।