তীর থেকে বালু উত্তোলনে নদীতে বাড়িঘর

হোমনায় সরকারি ড্রেজারে তিতাস নদী খনন

প্রকাশ: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

বাঞ্ছারামপুর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি

কুমিল্লার হোমনা উপজেলায় সরকারি ড্রেজার দিয়ে তিতাস নদীর তীর থেকে বালু উত্তোলন করায় দুটি ঘরসহ কয়েক বিঘা জায়গা বিলীন হয়ে গেছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলা সদরের বাগমারা গ্রামের পশ্চিমপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। নদী খননের পরিবর্তে বালু বিক্রির আশায় বিআইডব্লিউটিএর কিছু কর্মকর্তার সঙ্গে স্থানীয় একটি গোষ্ঠীর জোগসাজশে নদীর পাড় থেকে বালু উত্তোলনের অভিযোগ উঠেছে।

এক বছর ধরে ড্রেজার দিয়ে হোমনা ও বাঞ্ছারামপুর উপজেলার তিতাস নদী খনন করছে বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ।

হোমনা পৌর মেয়র মো. নজরুল ইসলাম বলেন, আমি নদীর পাড় থেকে বালু উত্তোলনের কথা শুনে নিজে বাগমারা গিয়ে ড্রেজার বন্ধ করার জন্য শুক্রবার সকালে বলেছি আর তার পরই নদীতে তাদের ঘরবাড়ি বিলীন হয়ে গেছে। আমরা বিআইডব্লিউটিএর লোকজনকে বলেছি পৌর এলাকায় কোনো বালু উত্তোলন চলবে না। বিআইডব্লিউটিএ নদী খনন না করে অতিরিক্ত বালু তোলার কারণে যাদের বাড়িঘর নদীতে বিলীন হয়ে গেছে, তাদের ক্ষতিপূরণ এবং ভাঙনরোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আমরা দাবি জানিয়েছি।

বিআইডব্লিউটিএর উপসহকারী প্রকৌশলী মো. মাসুদ রানা বলেন, নদী খননের পর নদীর পাশের বাড়িঘর বিলীন হয়ে যাওয়ার বিষয়ে আমাদের কোনো গাফিলতি ছিল না। কারণ নদী খননের বিষয়ে কলসালটেন্টরা যেভাবে নির্দেশনা দিয়েছেন, সেভাবেই খনন করা হয়েছে।

ইউএনও খান মো. নাজমুস শোয়েব বলেন, শুনেছি বিআইডব্লিউটিএর অতিরিক্ত বালু তোলার কারণে বাগমারা গ্রামের নদীপাড়ের দুটি ঘর এবং জায়গা ভেঙে বিলীন হয়ে গেছে। এ বিষয়ে এসি ল্যান্ডকে তদন্ত করতে বলেছি, প্রতিবেদন পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।