মাগুরায় ছাত্রলীগ ও মনিরামপুরে বিএনপি নেতাকে কুপিয়ে জখম

প্রকাশ: ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

মাগুরা ও মনিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি

মাগুরা শহরের জামরুলতলায় রোববার রাতে ছাত্রলীগের ২ নেতাকে কুপিয়েছে প্রতিপক্ষ ছাত্রলীগ নেতা। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা আলিমুজ্জামান রথিকে পুলিশ আটক করেছে। আহতরা হচ্ছেন- মাগুরা সদর উপজেলার হাজরাপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন ও তার ভাই একই ইউনিয়নের যুগ্ম সম্পাদক তিতাস উদ্দিন।

হাজরাপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন জানান, রাত ১০টার দিকে সামান্য বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটির জের ধরে মাগুরা পৌর ছাত্রলীগের ৬ নম্বর ওয়ার্ড সভাপতি আলিমুজ্জামান রথি তার ছোট ভাই হাজরাপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক তিতাসকে ছুরিকাঘাত করে। এ সময় বাধা দিতে গেলে রথি তাকেও ছুরিকাঘাত করে রক্তাক্ত জখম করে। পরে দলীয় সহকর্মীরা তাদের উদ্ধার করে মাগুরা ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

মাগুরা সদর থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম জানান, পুলিশ অভিযুক্ত আলিমুজ্জামান রথিকে আটক করেছে।

এদিকে মনিরামপুরে রাতে মুখোশধারী সন্ত্রাসীরা বিএনপি নেতা ইউপি সদস্য আবদুল মান্নানকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে রাস্তার পাশে ফেলে রেখে চলে যায়। স্থানীয়রা তাকে প্রথমে যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে অবস্থার অবনতি হলে রাতেই তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। রোববার রাত সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার জয়পুর গ্রামের উত্তরাইল মোড়ে একটি চায়ের দোকানের সামনে এ ঘটনা ঘটে। আবদুল মান্নান জয়পুর গ্রামের বিশ্বাসপাড়ার মৃত সাহেব আলীর ছেলে। তিনি ঢাকুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ৯নং ওয়ার্ড সদস্য এবং ইউনিয়ন বিএনপির স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়নবিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্বে রয়েছেন।

মনিরামপুর থানার ওসি মোকাররম হোসেন জানান, এ ব্যাপারে এখনও কেউ মামলা করেনি।