তালায় মেয়ের হাতে মা খুন ডোবায় মিলল একজনের লাশ

প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

সাতক্ষীরার তালা উপজেলার পাটকেলঘাটা থানার নগরঘাটা গ্রামে মেয়ে টুম্পা খাতুনের হাতে মা মমতাজ বেগম (৫০) খুন হয়েছেন। মেয়ের লোহার রডের আঘাতে মা মমতাজ নিহত হন বলে স্থানীয়রা জানায়। সোমবার রাতে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে এবং মঙ্গলবার ময়নাতদন্ত শেষে লাশ দাফন করা হয়েছে। নিহত মমতাজ খাতুন নগরঘাটা গ্রামের মৃত আবদুস সবুর সরদারের স্ত্রী। তবে মেয়ে টুম্পার দাবি, তার মা স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে।

স্থানীয়রা জানান, বেশ কয়েক বছর আগে মমতাজ বেগমের স্বামী আবদুস সবুর সরদার মারা গেছেন। নিহতের স্বামী পরিত্যক্ত মেয়ে টুম্পা খাতুন সোমবার দুপুরে তার মা মমতাজকে ঝগড়ার একপর্যায়ে লোহার রড দিয়ে মাথায় ও ঘাড়ে আঘাত করে। এতে মমতাজ জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। পরিবারের অন্য সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। কিন্তু রোগীর অবস্থা খারাপ দেখে তারা ভর্তি করতে রাজি হননি। পরে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে সন্ধ্যা ৭টার দিকে তার মৃত্যু হয়। রাতেই তার লাশ গ্রামের বাড়িতে এনে টুম্পা প্রচার করতে থাকে, তার মা স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। পাটকেলঘাটা থানার ওসি (তদন্ত) মো. শরিফুল ইসলাম জানান, দুপুরে ময়নাতদন্ত শেষে নিহতের পরিবারের কাছে মমতাজ বেগমের লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর পরবর্তী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

এদিকে, সোমবার রাতে একই থানার ঝড়গাছা গ্রামের একটি ডোবা থেকে গোপাল ঘোষের (৫২) মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার গায়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। পুলিশ জানায়, একই থানার ঝড়গাছা গ্রামের গোপাল ঘোষ সোমবার সকালে জমিতে ধান দেখার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেননি। অনেক খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে বাড়ির পাশে একটি বিলের ডোবায় তার মরদেহ ভাসতে দেখে পুলিশকে খবর দেয় স্থানীয়রা।