গাজীপুরে বিএনপির ৪৪০ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

গাজীপুর প্রতিনিধি

গাজীপুরে ব্যস্ততম রাস্তায় সমাবেশ ডেকে যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি, যানবাহন ভাংচুর, জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি এবং পুলিশের কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে বিএনপির ৪৪০ নেতাকর্মীর নামে মামলা করেছে পুলিশ। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী প্রয়াত আ স ম হান্নান শাহর ছেলে শাহ রিয়াজুল হান্নানকে প্রধান আসামি করে মঙ্গলবার এসআই আব্দুল বাসেদ জয়দেবপুর থানায় মামলাটি করেন। মামলায় ১৪০ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এ ছাড়া প্রায় ৩০০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার মো. রাসেল শেখ জানান, বিএনপির নেতাকর্মীরা রাস্তা বন্ধ করে সোমবার জেলা শহরের রাজবাড়ি রোডে পুলিশের বিনা অনুমতিতে সমাবেশ করছিলেন। তখন পুলিশ তাদের আয়োজন সংক্ষিপ্ত করার অনুরোধ জানায়। এ সময় পেছন দিক থেকে পুলিশকে লক্ষ্য করে নেতাকর্মীরা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকেন। তখন পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করার জন্য ফাঁকা গুলি ও টিয়ার গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে। এ সময় ২০-২৫ রাউন্ড গুলি ছোড়া হয়। বিএনপির নেতাকর্মীদের ইটপাটকেলে নাজমুল হোসেন, সাদ্দাম হোসেন ও শহীদুল ইসলাম নামে পুলিশের তিন কনস্টেবল আহত হন। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করেছে।

এদিকে জেলা বিএনপির সভাপতি ফজলুল হক মিলন অভিযোগ করে বলেন, পুলিশের অনুমতি নিয়ে দলীয় কার্যালয়ের সামনে বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মীর অংশগ্রহণে মানববন্ধন শেষে সমাবেশ চলছিল। এ সময় পূর্বদিক থেকে এসে পুলিশ হঠাৎ করেই ফাঁকা গুলি ছুড়তে থাকে। নেতাকর্মীদের ওপর লাঠিচার্জ করে। এক পর্যায়ে নেতাকর্মীদের লক্ষ্য করে পুলিশ গুলি ছোড়ে। এতে ছাত্রদল নেতা আবির হোসেন গুলিবিদ্ধ হন। আহত হন নাজমুল খন্দকার, আনোয়ারা বেগমসহ অন্তত ২২ জন। এ অবস্থায় শাহ রিয়াজুল হান্নান ও সিটি কাউন্সিলর হান্নান মিয়া হান্নুসহ বিএনপির ৯ নেতাকর্মীকে আটক করে নিয়ে যায় পুলিশ। এদিকে গ্রেফতার শাহ রিয়াজুল হান্নান ও কাউন্সিলর হান্নান মিয়া হান্নুসহ ছয়জনকে মঙ্গলবার দুপুরে গাজীপুর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে বিচারক তাদের জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।