শ্রীপুরে শিক্ষকের ২ বছরের জেল

প্রকাশ: ০৯ নভেম্বর ২০১৮

গাজীপুর প্রতিনিধি

পরীক্ষা শেষ হতে তখনও মিনিট বিশেক সময় বাকি। এক টুকরো কাগজের মধ্যে হাতে লেখা বীজগণিতের সমাধান দ্রুত পরীক্ষার খাতায় তুলছিল রুনা নামে এক পরীক্ষার্থী। বেঞ্চের পাশে দাঁড়িয়ে ওই পরীক্ষার্থীকে নিরাপত্তা দিচ্ছিলেন দায়িত্বরত শিক্ষক হেলাল উদ্দিন। কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার চোখ ফাঁকি দিতে ব্যর্থ হওয়ায় অবশেষে তারা দু'জনই আটকা পড়েন ওই কর্মকর্তার পেতে রাখা জালে। বৃহস্পতিবার শ্রীপুর সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভেন্যুতে এ ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিক শিক্ষক হেলাল উদ্দিনকে দুই বছরের কারাদণ্ড ও ছাত্রী রুনাকে এ বছরের জন্য বহিস্কার করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

শ্রীপুর সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রের সচিব মো. নাছির উদ্দিন জানান, বৃহস্পতিবার জেএসসির গণিত পরীক্ষার দিন খুঁজেখানী উচ্চ বিদ্যালয়ের পরীক্ষার্থী রুনা আক্তার নকল করছিল। এ সময় পাশে দাঁড়িয়ে গোসিঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ে সিনিয়র শিক্ষক হেলাল উদ্দিন তাকে সহযোগিতা করেন। দৃশ্যটি দেখে ফেলেন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জিনাত শারমীন। সঙ্গে সঙ্গে বিষয়টি ইউএনওকে জানানো হয়। পরে ইউএনও রেহেনা আকতার ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।