আবাসিক হলে নেই খাবারে ভর্তুকি

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকাশ: ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯      

কুবি সংবাদদাতা

প্রতিষ্ঠার একযুগ পেরিয়ে গেলেও কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে আবাসিক হলের শিক্ষার্থীদের খাবারে ভর্তুকি দেওয়া হচ্ছে না। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কোনো বরাদ্দ না থাকার কারণে হলে ভালো খাবার পরিবেশন করা হয় না। যার ফলে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে তাদের। বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে চারটি আবাসিক হল রয়েছে। যার মধ্যে তিনটি ছাত্রদের জন্য আর বাকি একটি ছাত্রীদের। হলগুলোতে সবমিলিয়ে প্রায় ১ হাজার আবাসিক শিক্ষার্থী রয়েছেন। হলে বসবাসরত শিক্ষার্থীদের জন্য দু'বেলা হলের ডাইনিংয়ে খাবার পাওয়া যায়। খাবারের জন্য তাদের বেলাপ্রতি মাথাপিছু ২৫ টাকা গুনতে হয়। যা এককালীন এক হাজার টাকা জমা দিয়ে থাকেন শিক্ষার্থীরা। এর বিনিময়ে দু'বেলা খাবার পাওয়া গেলেও সকালের নাশতা নিজের খরচে খেতে হয়।

আবাসিক হলের অধিকাংশ শিক্ষার্থী মধ্যবিত্ত বা নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের। যাদের পক্ষে মাসে ২ হাজার টাকা খাবারের পেছনে ব্যয় করতে হিমশিম খেতে হয়। কাজী নজরুল ইসলাম হলের আবাসিক শিক্ষার্থী ইমাম হোসাইন বলেন, অনেক শিক্ষার্থী খাবারের খরচ চালাতে পারেন না। অনেক কষ্ট করে পড়ালেখা চালিয়ে যান। তাই সব শিক্ষার্থীর আর্থিক কথা চিন্তা করে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে হলে ভর্তুকি দেওয়া প্রয়োজন।

শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত হলের শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান বলেন, বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোতে খাবারে ভর্তুকি না থাকার ফলে শিক্ষার্থীরা সুষম খাবার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। এতে করে তারা অসুস্থ হয়ে স্বাভাবিক শিক্ষা কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করতে পারছেন না। অন্যদিকে শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যঝুঁকিও বাড়ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারের সিনিয়র মেডিকেল অফিসার ডা. একেএম হেলাল মোর্শেদ বলেন, আমাদের কাছে যেসব শিক্ষার্থী চিকিৎসা নিতে আসেন, তাদের বেশির ভাগই অপুষ্টিতে ভোগেন। হলের আবাসিক শিক্ষার্থীদের মধ্যে ডায়েরিয়া, কোষ্ঠকাঠিন্য রোগ বেশি দেখা যায়।

কাজী নজরুল ইসলাম হলের প্রভোস্ট কাজী ওমর সিদ্দিকী রানা বলেন, সরকারি কোনো বরাদ্দ না থাকার কারণে হলে ভর্তুকি দেওয়া যাচ্ছে না। ভবিষ্যতে যদি সরকারি বরাদ্দ আসে, তবে তা ভর্তুকি দেওয়া হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক আবু তাহের বলেন, হলের ডাইনিংয়ে অর্থ বরাদ্দ দেওয়ার বিষয়টি বিবেচনায় রয়েছে। আমরা আশা করছি চলতি অর্থবছরে হলগুলোতে বরাদ্দ দেওয়া হবে।