সীতাকুণ্ডের ফৌজদারহাটে চট্টগ্রামের ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি (আইএইচটি) শিক্ষার্থীরা সব পরীক্ষা বর্জন করেছেন। কেন্দ্র পুনর্বহাল ও বহিরাগত হামলাকারীদের শাস্তির দাবিতে বুধবার সকাল থেকে আন্দোলনে নামেন শিক্ষার্থীরা।

জানা যায়, চট্টগ্রাম নগরীর ফিরিঙ্গিবাজারে সিটি করপোরেশন আইএইচটি পরীক্ষা কেন্দ্রে গত মঙ্গলবার পরীক্ষা দিতে যান ফৌজদারহাটের আইএইচটি শিক্ষার্থীরা। পরীক্ষা শেষে ফেরার সময় বহিরাগত সন্ত্রাসীরা তাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। হামলায় ২০ শিক্ষার্থী আহত হন। এর প্রতিবাদে বুধবার অনুষ্ঠিতব্য ল্যাব মেডিসিন, ডেন্টাল, ফিজিওথেরাপি, রেডিওথেরাপি, এসআইটিসহ সব পরীক্ষা বর্জন করে আন্দোলনে নামেন শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেন। কেন্দ্র পুনর্বহাল না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে বলে ঘোষণা দেন তারা।

আইএইচটির শিক্ষার্থী মাহবুবুল আল জাহিদ বলেন, হামলার ঘটনা নিয়ে নগরীর কোতোয়ালি থানায় অভিযোগ দিলেও পুলিশ কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। ফলে বাধ্য হয়ে আন্দোলনে নামতে হয়েছে।

অপর শিক্ষার্থী জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন, বহিরাগতরা পরীক্ষা কেন্দ্রে গিয়ে দরজা বন্ধ করে আমাদের ওপর হামলা চালিয়েছে। অথচ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা নীরব দর্শকের ভূমিকায় ছিল। সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনা করে ফের ফৌজদারহাটের সরকারি আইএইচটিতে পরীক্ষা কেন্দ্র পুনর্বহাল ও হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তিনি।

আইএইচটির অধ্যক্ষ ডা. মো. মাহফুজুল হক বলেন, মঙ্গলবারের হামলার ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বুধবারের সব পরীক্ষা বর্জন করেছে শিক্ষার্থীরা। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

মন্তব্য করুন