স্কুলছাত্রীর সম্মানহানি গৌরনদীতে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে চার্জশিট গ্রহণ

প্রকাশ: ১৫ মার্চ ২০১৯      

বরিশাল ব্যুরো

গৌরনদীতে স্কুলছাত্রীর শ্নীলতা ও সম্মানহানির মামলায় একটি জাতীয় দৈনিকের গৌরনদী উপজেলা প্রতিনিধির বিরুদ্ধে পুলিশের দেওয়া অভিযোগপত্র গ্রহণ করেছেন আদালত। বৃহস্পতিবার জেলা জজ আদালতের বিচারক ইফতেখার আহম্মেদ অভিযোগপত্রটি গ্রহণ করে মামলাটি বিচারিক আদালতে পাঠান।

মামলার আসামি জহিরুল ইসলাম জানান, উপজেলা ছাত্রলীগের এক নেতা ও ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ ও তার পরিবারকে হুমকি দিয়ে আটকে রাখার খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। ছাত্রলীগ নেতার প্রতিপক্ষ লোকজন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তা ছড়িয়ে দেয়। তিনি সত্যতা যাচাই করতে গত ২৯ জুন ভুক্তভোগীর বাড়িতে যান। কিন্তু ভুক্তভোগী ও তার পরিবার ঘটনার সত্যতা স্বীকার না করায় সংবাদ প্রকাশ করা থেকে বিরত থাকেন জহিরুল। অন্য যারা ফেসবুক ও পত্রিকায় সংবাদটি প্রকাশ করেছে তাদের আসামি না করে তার নাম উল্লেখ করে স্কুলছাত্রী শ্নীলতা ও সম্মানহানির মামলা দায়ের করে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা অসাদুজ্জামান খান জানান, ওই স্কুলছাত্রী জহিরুলের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতপরিচয় সাত সাংবাদিককে আসামি করে গত বছরের ৪ জুলাই শ্নীলতা ও সম্মানহানির একটি মামলা দায়ের করে। তদন্তে আসামি জহিরের বিরুদ্ধে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় গত ২৮ ফেব্রুয়ারি তার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। অজ্ঞাতপরিচয় সাত আসামিকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।