গৌরীপুরে রেলওয়ের জমি দখলের অভিযোগ

প্রকাশ: ১৩ এপ্রিল ২০১৯

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

গৌরীপুরে মাটি ভরাট করে রেলওয়ের সরকারি জমি দখল করার অভিযোগ উঠেছে। রেলওয়ে স্টেশনের আবাসিক এলাকার একটি ডোবা ভরাট করে চলছে দখল। দখলদারের দাবি, তিনি দখল করছেন না। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ বলছে, কাজটি বন্ধ করা হয়েছে।

গৌরীপুর রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন উপসহকারী প্রকৌশলীর কার্যালয়ের ১০০ গজ পূর্বদিকে বাড়িওয়ালা পাড়ায় রেলওয়ে কোয়ার্টারের পাশেই আসাদুজ্জামান রমেন্সের ১৬ শতক জমি রয়েছে। গত ২০০৮-০৯ সালের দিকে জমিটি তার বাবা কেনেন। রমেন্স ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনে কর্মরত রয়েছেন।

গত মাসের শুরু থেকে রেলওয়ের পাশে থাকা রমেন্স জমিতে মাটি ভরাট শুরু করেন। নিজের জমির পাশে রেলওয়ের একটি ডোবাও মাটি ভরাট করে ফেলেন। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়দের আপত্তির মধ্যেও চলে মাটি ভরাটের কাজ। এতে ওই এলাকার বাসিন্দাদের বিপাকে পড়তে হচ্ছে। অভিযোগ রয়েছে, রাস্তা নির্মাণ করতে গিয়ে স্থানীয় বাসিন্দার ব্যক্তিগত জমির বাঁশঝাড় কেটেছেন রমেন্স।

অবৈধভাবে রেলওয়ের জমিতে মাটি ভরাট করে রেলওয়ের জায়গায় উঁচু করে রাস্তা নির্মাণের কারণে আশপাশের বাসিন্দাদের বাড়ির প্রবেশপথও বন্ধ হয়ে গেছে। মাটি ভরাট করায় ডোবার পানি চলাচলের রাস্তা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বর্ষায় এখানে জলাবদ্ধতা হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।

আসাদুজ্জামান রমেন্স বলেন, রেলওয়ের জায়গা দখল করার কোনো ইচ্ছা তার নেই। রেলওয়ের জমির পাশে তাদের নিজের জমি রয়েছে। সেই জমিতে মাটি ভরাট করার জন্য কোনো রাস্তা না থাকায় রেলওয়ের জমির ওপর কিছু মাটি ফেলে রাস্তা করা হয়েছিল। সেটি দেখে মানুষ ভেবেছে রেলওয়ের জায়গা দখল করে নিচ্ছি।

ময়মনসিংহ রেলস্টেশনের নির্বাহী প্রকৌশলী সুকুমার বিশ্বাস বলেন, যতদূর জানতে পেরেছি রেলওয়ের জমির পাশে ব্যক্তিগত জমি রয়েছে। রেলওয়ের জমির ওপর যে কাজ করা হয়েছিল তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।