প্রেমিকাকে ফেলে পালিয়েছে প্রেমিক!

প্রকাশ: ১৩ এপ্রিল ২০১৯

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

এক বছর ভালোবাসার সম্পর্ক দীর্ঘস্থায়ী করতে প্রেমিকের হাত ধরে অজানা গন্তব্যে পথ পাড়ি দেয় কিশোরী। কিন্তু প্রতারক প্রেমিক কিশোরীকে রেলস্টেশনে রেখে পানি আনার কথা বলে সটকে পড়ে। অনেক সময় পেরিয়ে গেলেও প্রেমিক না আসায় কয়েক বখাটের খপ্পরে পড়ে মেয়েটি। খবর পেয়ে পুলিশ ভৈরব থেকে আসা কিশোরীকে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে। এ ঘটনা ঘটেছে ময়মনসিংহের গৌরীপুরে।

ভৈরবের কমলপুর নিউটাউন উত্তরপাড়া এলাকার বাসিন্দা কিশোরী। কয়েক বছর আগে তার বাবা প্রয়াত হয়েছেন। মায়ের সঙ্গেই ওই এলাকায় বসবাস করত মেয়েটি। ওই এলাকায় বসবাস করত রনি মিয়া নামের এক যুবকও। সে আরএফএল কোম্পানির ওই এলাকায় কর্মরত ছিল। রনির বাড়ি নেত্রকোনা জেলায় বলে জানা গেছে। তরুণীর বাসার কাছাকাছি বাসায় রনি বসবাস করায় দু'জনের মধ্যে ভালোলাগা থেকে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত কয়েকদিন আগে রনি মেয়েটিকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। এতে রাজি হয়ে যায় কিশোরী। বুধবার রনির হাত ধরে বাড়ি ছাড়ে সে। তাকে নিয়ে দু'দিন ঘুরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গৌরীপুর রেলওয়ে স্টেশনে এসে পৌঁছে। স্টেশনে নেত্রকোনাগামী ট্রেনের জন্য অপেক্ষা করতে হবে- এ কথা বলে মেয়েটিকে বসিয়ে পানি আনার কথা বলে সটকে পড়ে রনি। অনেকক্ষণ একা অপেক্ষা করে রনির দেখা পায়নি মেয়েটি। এদিকে রাত বাড়তে থাকায় নানা শঙ্কা হয় কিশোরীর। মেয়েটিকে ঘিরে বখাটে কিছু যুবকের আনাগোনা দেখে স্থানীয় কয়েকজন এগিয়ে আসেন। খবর পেয়ে সেখানে যান বাংলাদেশ মানবাধিকার

কমিশন গৌরীপুর শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. রইছ উদ্দিন। তিনি মেয়েটির ওই অবস্থার কথা জেনে বিষয়টি পুলিশকে জানান। পরে পুলিশ মেয়েটিকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।