এলইডি বাতিতে আলোকিত মুক্তাগাছা শহর

প্রকাশ: ২৩ মে ২০১৯      

শফিক সরকার, মুক্তাগাছা (ময়মনসিংহ)

গ্রাম হবে শহর। ১১তম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ স্লোগান ছিল আওয়ামী লীগ প্রার্থীদের। ময়মনসিংহ-৫ মুক্তাগাছা আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বর্তমান সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদেরও নির্বাচনী স্লোগান ছিল গ্রাম হবে শহর। তিনি নির্বাচিত হওয়ার পর ভুলে যাননি তার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি। শুরু করেছেন গ্রাম হবে শহরের কাজ। তিনি প্রতিমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পর শহরে এলইডি বাতি লাগিয়ে তার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের কাজ শুরু করেন। শহরের প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে স্থাপন করেন এলইডি বাতি। এক সময়ের অন্ধকারের শহর এখন পুরোটাই আলোকিত। এখন বাকি গ্রামে আলোর ঝলকানির কাজ। এ কাজটিও তিনি শুরু করেছেন। তিনি চান তার প্রতিটি নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করতে। এ লক্ষ্যেই তিনি একের পর এক উন্নয়নের কাজ হাতে নিয়েছেন।

এক সময় মুক্তাগাছা শহর ছিল অন্ধকারে। পৌরসভার বাতি ছিল নিবু নিবু অবস্থায়। ওই আলো তেমন কাজে আসত না পৌরবাসীর। এক বাতি জ্বলে থাকলে আরেক বাতি ছিল অচল। এভাবে শহরের অধিকাংশ বাতিই ছিল অচল। আর যে ক'টি বাতি জ্বলত এগুলোরও আলো ছিল খুবই কম। রাতে পর্যাপ্ত আলোর অভাবে মুক্তাগাছা শহরের অনেক জনপদই ছিল অনিরাপদ। এভাবে মাসের পর মাস অন্ধকারেই থাকত পৌরসভা। সে শহর এখন পুরোটাই আলোকিত। শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে স্থাপন করা হয়েছে ২৪ হাজার টাকা দামের এলইডি বাতি। বিভিন্ন ধরনের ২০৪টি বাতি শহরের গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় স্থাপন করা হয়েছে। এতে রাতেও দিনের আলোর ছোঁয়া লেগেছে শহরে। পর্যায়ক্রমে উপজেলার সবক'টি বাজার ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানে স্থাপন করা হবে এলইডি বাতি। এতে রাতে গ্রামে ঢুকলে মনে হবে যেন শহর। এভাবেই পুরো উপজেলাকে এলইডি বাতি দিয়ে আলোকিত করা হবে। শহরের বাতি জ্বলবে পৌরসভার বিদ্যুৎ খরচে আর গ্রামে বাতি জ্বলবে সৌর বিদ্যুতের মাধ্যমে। এসব বাতি দেখাশোনার জন্য নিয়োজিত থাকবে ইলেকট্রিশিয়ান।

শহরের পাড়াটঙ্গি এলাকার বাসিন্দা রাহাদ হোসেন ফরহাদ বলেন, এক সময় পুরো শহর ছিল ঘোর অন্ধকারে। আর এখন এলইডি বাতি স্থাপনের পর পুরো শহর আলোকিত হয়ে গেছে। রাতে মনে হয় পুরো শহর যেন দিনের আলোতে আলোকিত হয়ে আছে।

পৌরসভার প্যানেল মেয়র রিয়াজ উদ্দিন সিরাজ বলেন, পৌরসভার বাতি ছিল শহরজুড়েই তবে ওই বাতি তেমন আলো ছড়াত না। কিন্তু এলইডি বাতি লাগানোতে পুরো শহর এখন আলোকিত হয়ে গেছে। প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে স্থাপন করা হয়েছে তিন ধরনের ভোল্টেজের এলইডি বাতি। এতে রাতে চোর ও দুস্কৃতকারীদের সহজেই চিহ্নিত করা যাবে। এটা বর্তমান সরকারের জন্য নিঃসন্দেহে ভালো একটি উদ্যোগ।

সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ বলেন, নির্বাচনের সময় ভোটারদের কাছে তার প্রতিশ্রুতি ছিল তিনি নির্বাচনে পাস করলে গ্রামকে শহরে পরিণত করা হবে। এ ছাড়া এটি বর্তমান সরকারেরও একটি নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি ছিল। নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করতেই তিনি শহরের প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে স্থাপন করেছেন দামি এলইডি বাতি। এখন পর্যায়ক্রমে গ্রামের প্রতিটি বাজার ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানে স্থাপন করা হবে খুঁটির মাধ্যমে সৌর বিদ্যুতের এলইডি বাতি। এতে গ্রাম আলোকিত হয়ে উঠবে। এর মাধ্যমে রাতের বেলায় অপ্রীতিকর ঘটনাও কমে আসবে।

তিনি বলেন, তার নির্বাচনী প্রতিটি প্রতিশ্রুতি পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন করা হবে। এরই মধ্যে তিনি একাধিক কাজ হাতে নিয়েছেন।