তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে তাবলিগ জামাতে আসা এক সদস্যের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। কর্তব্যরত চিকিৎসক জালাল উদ্দিন জানান, ভোর সাড়ে ৬টায় অটোরিকশায় চালকসহ অজ্ঞাতপরিচয় আরও এক ব্যক্তি লোকটিকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালের ইমারজেন্সিতে নিয়ে আসে। আমি দেখে তাদের বলি, ইসিজি করতে হবে। এমন সময় ওই দুই ব্যক্তি ইসিজি মেশিন প্রাইভেট হাসপাতাল থেকে নিয়ে আসি বলে আর ফিরে আসেনি। তারা ফিরে না আসায় আমার সন্দেহ হলে আমি পুলিশে খবর দিই।

এসআই মোস্তফা চৌধুরী জানান, হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক মো. জালাল উদ্দিন ফোন দিয়ে জানান, একটি লাশ হাসপাতালে রেখে দুই ব্যক্তি পালিয়ে গেছে। নিহতের মাথার পেছনে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ফেসবুকের ছবি দেখে উপজেলার কালাই গোবিন্দপুর চকের বাড়ি জামে মসজিদে তাবলিগ জামাতে আসা গ্রুপের আমির আলামিন লাশটি শনাক্ত করেন। নিহতের বাড়ি বরিশাল জেলার হিজলা উপজেলার মান্দ্রা বাঘাবাড়ি গ্রামে। তিনি আব্দুল মান্নান মিয়ার ছেলে মো. জোবায়ের। তিনি ঢাকা কামরাঙ্গীরচর মুসলিমবাগ দিলু মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। বিকেলে নিহতের স্ত্রী সুমি বেগম থানায় অঙ্গীকার দিয়ে লাশ নিয়ে গেছেন। হাসপাতালে লাশ রেখে পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় স্থানীয়দের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে এবং এক মাস আগেও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আরিফুল ইসলাম খোকাকে হাসপাতালের ভেতরে একদল দুর্বৃত্ত এলোপাতাড়ি পিটিয়ে আহত করে চলে যায়।

মন্তব্য করুন