ভুল চিকিৎসার শিকার ছাত্রী গোপালগঞ্জে চিকিৎসক ও নার্স কারাগারে

প্রকাশ: ০৮ জুলাই ২০১৯

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী মরিয়ম সুলতানা মুন্নীকে ভুল ইনজেকশন পুশ করার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় দুই নার্স ও একজন ডাক্তারের জামিন বাতিল করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

রোববার দুপরে ড. তপন কুমার মণ্ডল এবং নার্স কুহেলিকা গোপালগঞ্জ সদর আমলি আদালতের বিচারক হুমায়ুন কবীরের আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করলে আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এর আগে গোপালগঞ্জ সদর থানায় শিক্ষার্থীর চাচা জাকির হোসেন বাদী হয়ে ড. তপন কুমার মণ্ডল, নার্স শাহনাজ পারভিন ও কুহেলিকাকে আসামি করে হত্যাচেষ্টার মামলা করেছিলেন। তাদের গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হলে অভিযুক্তরা হাইকোর্ট থেকে ৮ সপ্তাহের জন্য জামিন নিয়েছিলেন। জামিনের সময় শেষ হওয়ায় রোববার ড. তপন কুমার মণ্ডল ও নার্স কুহেলিকা নিম্ন আদালতে হাজির হলে আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

গত ২০ মে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নার্সের ভুল ইনজেকশনের কারণে জ্ঞান হারান ওই শিক্ষার্থী। তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়। এদিকে দীর্ঘদিন পার হলেও মুন্নীর জ্ঞান না ফেরায় উদ্বিগ্ন তার পরিবার।