৯ দপ্তরপ্রধানের পদ শূন্য প্রশাসনে অচলাবস্থা

প্রকাশ: ০৮ জুলাই ২০১৯

বেতাগী (বরগুনা) প্রতিনিধি

বেতাগী উপজেলায় সহকারী কমিশনার (ভূমি), হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তাসহ ৯টি দপ্তরে কর্মকর্তার পদ শূন্য রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে পদগুলো শূন্য থাকায় প্রশাসনিক কার্যক্রমে তৈরি হয়েছে স্থবিরতা।

উপজেলার ১৭টি দপ্তরের মধ্যে ৯টিতেই দপ্তরপ্রধানের পদ শূন্য থাকায় সিদ্ধান্ত গ্রহণে দীর্ঘসূত্রতা, অব্যবস্থাপনা আর সেবা প্রদানে সৃষ্টি হয়েছে জটিলতা। বাস্তবায়িত হচ্ছে না সরকারের উন্নয়ন কর্মসূচি। জবাবদিহিতা না থাকায় প্রকল্পের কাজের গুণগতমানও নিশ্চিত হচ্ছে না।

ভূমি ব্যবস্থাপনায় উপজেলায় সর্বোচ্চ পদ সহকারী কমিশনার (ভূমি) না থাকায় ইউএনওর অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে এ দপ্তরের কাজ করছেন। সার্বক্ষণিক কর্মকর্তা না থাকায় ত্বরিত সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে লোকজন। উপজেলা প্রকৌশলী না থাকায় চলমান উন্নয়ন প্রকল্পের কাজে তদারকি হচ্ছে না। এ ছাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা, উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা, উপজেলা বন কর্মকর্তা, উপজেলা পরিসংখ্যান কর্মকর্তা, উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা ও উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার পদ দীর্ঘদিন শূন্য রয়েছে। এসব দপ্তর চলছে অতিরিক্ত দায়িত্বের কর্মকর্তা দিয়ে। তারা সপ্তাহে দু-একদিন অফিসে আসেন। ফলে কাজের জন্য দিনের পর দিন ঘুরতে হয় লোকজনকে। উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার কার্যালয়ে আসা একজন পেনশনভোগী বলেন, 'কর্মকর্তা না থাকায় একটা কাজের জন্য কয়েকবার অফিসে আসতে হয়। এ বয়সে বারবার অফিসে আসতে আমাদের কষ্ট হয়।'

এদিকে সম্প্রতি সংসদ সদস্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শনে এসে প্রধান সহকারী ও হিসাবরক্ষকের অনিয়মে অসন্তোষ প্রকাশ করেন। উপজেলা ঠিকাদার সমিতির সভাপতি ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম পিন্টু বলেন, এখানে কোটি কোটি টাকার কাজ চলছে। উপজেলা প্রকৌশলী না থাকায় চলমান কাজের গুণমান বজায় রাখা যাচ্ছে না। ইউএনও রাজীব আহসান বলেন, শূন্য পদে পদায়নের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।