বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল স্কুলছাত্রী

প্রকাশ: ০৮ জুলাই ২০১৯

মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি

মদন উপজেলার সদর ইউনিয়নের কুলিয়াটি (বড়পাড়া) গ্রামের মেয়ে কুলিয়াটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সহায়তায় বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল।

রোববার কুলিয়াটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রেহেনা সুলতানা বিদ্যালয়ে আসতেই খবর পান, তার বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রীর সঙ্গে ছাত্রীর চাচা হাসেম মিয়ার কলেজ পড়ূয়া ছেলে কাউছারের বিয়ের আয়োজন চলছে। পরে প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ের সবাইকে নিয়ে বিয়ে বাড়িতে যান। সেখানে বিয়ের আয়োজন দেখে উভয়পক্ষকে বাল্যবিয়ের কুফল সম্পর্কে অবগত করেন। এতে তারা বিয়ে বন্ধ রাখবেন বললেও মুচলেকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় প্রধান শিক্ষকের মনে সন্দেহ জাগে। তিনি স্কুলে ফিরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে মোবাইল ফোনে বিষয়টি অবগত করেন। পরে ইউএনও মো. ওয়ালীউল হাসান মদন থানার পুলিশকে বিষয়টি জানান।

মদন ইউনিয়ন তহসিল অফিসের উপসহকারী ভূমি কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন ও এসআই তোফাজ্জল হোসেন পুলিশ দল নিয়ে বিয়ে বাড়িতে যান। সেখানে উপস্থিত সবাইকে বাল্যবিয়ের কুফল ও সরকারের আইন নিয়ে আলোচনা করার পর এলাকার জনপ্রতিনিধি, গণ্যমান্য ব্যক্তি, ছেলে-মেয়ের বাবা মায়ের উপস্থিতিতে বিয়ে বন্ধের সিদ্ধান্ত হয় এবং তাদের পূর্ণ বয়স না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেওয়া হবে না বলে মুচলেকা দেন।