কালিয়াকৈরে বনের জমি দখলের অভিযোগ

প্রকাশ: ০৮ জুলাই ২০১৯

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি

কালিয়াকৈর রেঞ্জ ও কাঁচিঘাটা রেঞ্জ এলাকায় সরকারি বনের জমির গজারি গাছে কেমিক্যাল মেরে জমি জবর-দখলের অভিযোগ উঠেছে।

অনেকের অভিযোগ, শিল্পাঞ্চলের গজারি গাছ কেমিক্যাল দিয়ে মেরে ফেলা হচ্ছে। পরে সুকৌশলে গাছ রাতের আঁধারে কেটে নিয়ে জমি জবর-দখল করা হচ্ছে। আবার অনেক প্রভাবশালী বনের জমিতে রাতারাতি মার্কেট গড়ে তোলে ভাড়া দিয়ে কামিয়ে নিচ্ছে মোটা অঙ্কের টাকা। তবে বিট কর্মকর্তারা বলছেন, ওইসব গাছ কেন মারা যাচ্ছে তার কারণ তাদের জানা নেই। তবে বনের জমিতে নতুন কোনো স্থাপনা উঠলেই তা উচ্ছেদ করা হচ্ছে।

রোববার দিনভর কালিয়াকৈর ও কাঁচিঘাটা রেঞ্জ এলাকা ঘুরে দেখা গেছে গজারি গাছ মরে যাওয়ার দৃশ্য। চন্দ্রা বিটের অধীনে পল্লী বিদ্যুৎ পলানপাড়া গ্রামে এ দৃশ্য বেশি দেখা গেছে। এখানে প্রায় সহস্রাধিক গাছ মরে গেছে। কখনও ঝড়ো হাওয়ায় গাছের ডালপাল ভেঙে চলন্ত গাড়ি কিংবা পথচারীর ওপর পড়ছে। এতে নিহতসহ আহতের ঘটনা ঘটছে।

উপজেলার বিশ্বাসপাড়া, আজলিপাড়া, মৌচাক বিট অফিসের উত্তর মৌচাক, ভান্নারা ত্রিমোড় এলাকা, কাঁচিঘাটা এলাকার জাথিলা বিটের বাংলাবাজার এলাকা, দক্ষিণ চন্দ্রার ওয়ালটন কারখানার সামনে এবং বাড়ইপাড়া বিটের অধিকাংশ এলাকায় মরা গাছ দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে।

মৌচাক এলাকার হারুন জানান, বনের গাছ কোনো কারণে মরে গেলে তা কেটে নিয়ে যাওয়া উচিত। তা না হলে বৃষ্টি কিংবা ঝড়ের দিনে গাছের ডাল ভেঙে পথচারীদের ওপর পড়ে আহত কিংবা নিহতও হতে পারে।

চন্দ্রা বিট অফিসের বিট কর্মকর্তা মনজুরুল ইসলাম জানান, বনের গাছ কী কারণে মরে যাচ্ছে তা বলতে পারছি না। তবে কেউ গাছ মেরে ফেলছে এমন কোনো অভিযোগ নেই। কেউ বনের জমি জবর-দখল করে অবৈধ স্থাপনা গড়ে তুললে তা উচ্ছেদ করে গাছের চারা লাগিয়ে দেওয়া হচ্ছে।