হত্যা মামলার আসামির বাড়িতে হামলা, ভাংচুর

প্রকাশ: ১০ জুলাই ২০১৯

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

জেলা শহরের সাতপাই রেল কলোনিতে গৃহবধূ শাহিনূর আক্তার হত্যা মামলার আসামি বরুণ সরকার বোরহানের বাসায় হামলা ও ভাংচুর চালিয়েছে বাদীপক্ষের লোকজন। হামলাকারীরা সোমবার রাতে ওই বাসায় হামলা চালিয়ে আসবাব ও দরজা-জানালা ভাংচুর করে। এ সময় হামলাকারীরা হত্যা মামলার আসামির স্ত্রী মিটু রানী সরকার ও ছেলে নেত্রকোনা উচ্চ বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র পলাশ সরকারকে হুমকি দিয়ে বাসা থেকে বের করে দেয়।

সাতপাই রেল কলোনির বাসিন্দা ইদ্রিস মিয়ার বখাটে ছেলে সোহেলের সঙ্গে এক নারীর পরকীয়ায় বাধা দেওয়ায় সন্ত্রাসীরা গত ১৭ মে অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ শাহীনূর আক্তারকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করে। এ ঘটনায় নিহতের ভাই আবদুল ওয়াহাব পরদিন পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. এরশাদ মিয়া, এলাকাবাসী বরুণ সরকার বোরহানসহ ১৬ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতপরিচয় চার-পাঁচজনকে আসামি করে নেত্রকোনা মডেল থানায় হত্যা মামলা করেন। এ ঘটনায় পুলিশ কয়েক নারীকে গ্রেফতার করে। পরে তারা আদালত থেকে জামিনে ছাড়া পান। ঘটনার পর থেকে মামলার অন্য আসামিরা আত্মগোপন করে। যারা জামিনে এসেছেন, তারা হামলার ভয়ে নিজ বাসায় যেতে পারছেন না। এ সুযোগে বাদীপক্ষের লোকজন আসামিদের বাসায় হামলা ও ভাংচুর চালাচ্ছে।

বরুণ সরকারের স্ত্রী মিটু রানী সরকার জানান, গত সোমবার রাতে মঞ্জিলের নেতৃত্বে চার-পাঁচজন তাদের বাসায় হামরা চালিয়ে ভাংচুর করে। এ সময় তারা ঘরের আসবাবপত্র তছনছ করে। বাসা থেকে তাদের বের করে দেয় এবং এলাকা ছেড়ে যাওয়ার কথা বলে। তা-না হলে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দেয়। তিনি তার শিশুসন্তান নিয়ে জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। নেত্রকোনা মডেল থানার ওসি মো. তাজুল ইসলাম জানান, আসামিদের বাসায় হামলার বিষয়টি তার জানা নেই।