অভয়নগরে চাঁদা না দেওয়ায় মাঝিকে হত্যাচেষ্টা

প্রকাশ: ১২ জুলাই ২০১৯

নওয়াপাড়া (যশোর) প্রতিনিধি

সন্ত্রাসীর দাবি করা চাঁদা না দেওয়ায় ঘাটমাঝি স্বপন কুমার বিশ্বাসকে (৪৫) হত্যাচেষ্টা চালানো হয়েছে। গত বুধবার রাতে অভয়নগর উপজেলার শংকরপাশা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার প্রতিবাদে নওয়াপাড়া বাজার খেয়াঘাটের মাঝিরা ঘাট পারাপার বন্ধ করে দেন। প্রায় এক ঘণ্টা পারাপার বন্ধ ছিল। এ সময় দুই পাড়ে অসংখ্য মানুষ ভোগান্তিতে পড়েন। পরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পুলিশের আশ্বাসের পর আবার খেয়া পারাপার শুরু হয়।

ঘাটমাঝি স্বপন বিশ্বাস জানান, অভয়নগর উপজেলার শংকরপাশা গ্রামের মৃত আবুল গাজীর ছেলে উজ্জল গাজী তার কাছে এবং নওয়াপাড়া বাজার খেয়াঘাটের মাঝি সুজন মাঝির কাছে ৫০ হাজার টাকা করে চাঁদা দাবি করে। তিনি ভয়ে ঈদের আগে ৩০ হাজার টাকা দিয়েছেন। দুইদিন আগে বাকি ২০ হাজার টাকা দাবি করলে ওই মাঝি আর দিতে পারবেন না বলেন এবং তাকে মাফ করার কথা বলেন। কিন্তু গত বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে নৌকা বন্ধ করে বাড়ি যাওয়ার সময় উজ্জল তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ধারালো দেশীয় অস্ত্র (চাপাতি) নিয়ে তার দিকে এগিয়ে এসে ধাওয়া করে। তিনি দৌড়ে পালান এবং চিৎকার করতে থাকেন। তার চিৎকারে এলাকার লোকজন এগিয়ে এলে উজ্জল পালিয়ে যায়। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে অন্য মাঝিরা জানতে পেরে নওয়াপাড়া বাজার খেয়াঘাটের সব নৌকা বন্ধ করে দেন। পরে পুলিশ ও স্থানীয় চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের আশ্বাসে প্রায় এক ঘণ্টা পর আবার নৌকা চলাচল শুরু হয়। চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী মোল্যা বলেন, 'সকাল ৭টা থেকে মাঝিরা খেয়া পারাপার বন্ধ করে দেয়। প্রায় ২ ঘণ্টা পর পুলিশ প্রশাসনের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা পর সন্ত্রাসী উজ্জলকে গ্রেফতারের আশ্বাস দিলে আবার পারাপার শুরু হয়। এ সময় দু'পাড়ে হাজার হাজার মানুষ ব্যাপক ভোগান্তির শিকার হন।'

অভয়নগর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, 'উজ্জল গাজী পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী এবং চরমপন্থি সংগঠনের সঙ্গে জড়িত। তার নামে একাধিক মামলা রয়েছে। সে দীর্ঘদিন পলাতক রয়েছে। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।'